আগে সংগঠন, পরে আন্দোলন: বিএনপি

রমজানজুড়ে হুঁশিয়ারি দিলেও এবার দল গুছিয়ে আন্দোলনে নামতে চায় বিএনপি। দলটির শীর্ষ মহল ভাবছে সাংগঠনিক শক্তি নিয়ে মাঠে নামলে এবার আন্দোলন সফল হবে। সে লক্ষ্যে ঢাকা মহানগরের পর এবার অংগ সংগঠনে নতুন নেতৃত্ব আনার জোর চেষ্টা চলছে। পাশাপাশি তৃণমূলের নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করতে শুরু হচ্ছে দেশব্যাপী গণসংযোগ কর্মসূচি। বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়ে যা চলবে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত। এরমাধ্যমে মূলত সংগঠন গুছিয়ে যৌক্তিক সময়ে মাঠে নামার পরিকল্পনা করছে দলটি।
বিএনপির নীতি নির্ধারণী মহলের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এবার আন্দোলনে নামার উপযুক্ত সময় ধরা হচ্ছে নভেম্বর। তবে এরআগে নানা কর্মসূচির মাধ্যমে মাঠ দখলে রাখার চিন্তাও আছে।

 

ইতিমধ্যে দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেছেন, “সোজা আঙুলে ঘি উঠবে না।আন্দোলনের মাধ্যমেই সরকারের পতন ঘটাতে হবে।” পাশাপাশি তিনি সংকট সমাধানে সরকারকে আলোচনায় বসারও আহ্বান জানিয়েছেন।

 

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, দেশব্যাপী সংগঠনকে শক্তিশালী করতে গণসংযোগ কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রধান করে টিম তৈরি করা হয়েছে। যারা পর্যায়ক্রমে সারাদেশে গণসংযোগ করবেন। গণসংযোগ শেষে দলের পক্ষ থেকে  ঢাকায় একটি সমাবেশ করা হতে পারে। সেখান থেকে নতুন কর্মসূচি দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

সাংগঠনিক টিমের কয়েকজন প্রধানের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সফরে মূলত তৃনমূলের সংগঠনকে চাঙ্গা করা ও কোন্দল থাকলে তার সমাধানের চেষ্টা করা হবে।
সফর শেষে দলের চেয়ারপারসনের কাছে আলাদা আলাদা প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে বলে জানা গেছে। এরআগেও টিম করে সংগঠন গোছানোর লক্ষ্যে জেলায় জেলায় কেন্দ্রীয় নেতাদের পাঠিয়েছিল বিএনপি।

 

এছাড়া নির্দলীয় সরকারের দাবি ও সরকারের নানা কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে জনগণকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানাবে বিএনপি নেতারা।

 

বিএনপির দফতর সূত্রে জানা যায়, দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে মানিকগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ ও ঢাকা মহানগরে গণসংযোগের টিম প্রধান করা হয়েছে। তিনি আগামী ২৪ আগস্ট মুন্সিগঞ্জ যেতে পারেন বলে জানা গেছে।

 

এছাড়া অন্যান্য টিমের নেতৃত্বে যারা আছেন এবং নির্দিষ্ট এলাকাগুলো হলো-  স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান পঞ্চগড় ও ঠাকুরগাঁও, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ ঢাকা জেলা ও নারায়ণগঞ্জ, তরিকুল ইসলাম নড়াইল, খুলনা জেলা ও মহানগর, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার দিনাজপুর ও সৈয়দপুর, ব্রিগেডিয়ার (অব.) আ স ম হান্নান শাহ নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুর, ড. আব্দুল মঈন খান ফরিদপুর ও মাদারীপুর, এম কে আনোয়ার চট্টগ্রাম দক্ষিণ ও মহানগর, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় যশোর ও ঝিনাইদহ,  ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া ময়মনসিংহ উত্তর ও দক্ষিণ, নজরুল ইসলাম খান বগুড়া, রাজশাহী মহানগর ও সিরাজগঞ্জ।

 

ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ পিরোজপুর, এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী ভোলা, সেলিমা রহমান নেত্রকোনা ও কিশোরগঞ্জ, আব্দুল্লাহ আল নোমান বরিশাল উত্তর ও দক্ষিণ এবং মহানগর, এম মোর্শেদ খান কক্সবাজার, শমসের মবিন চৌধুরী ব্রাহ্মণবাড়িয়া, হবিগঞ্জ,  চৌধুরী কামাল ইবনে ইফসুফ রাজবাড়ী ও গোপালগঞ্জ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. ওসমান ফারুক নরসিংদী ও টাঙ্গাইল, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী রাঙ্গামাটি ও ফেনী, আব্দুল আউয়াল মিন্টু খাগড়াছড়ি, মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন কুমিল্লা।

 

ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু রাজশাহী জেলা ও পাবনা, ফজলুর রহমান পটল নীলফামারী, ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ, মুশফিকুর রহমান শেরপুর, খন্দকার মাহবুব হোসেন বরগুনা, অ্যাড. আহমেদ আজম খান শরীয়তপুর, অ্যাড.জয়নুল আবেদীন গাজীপুর জেলার টিমের নেতৃত্ব দিবেন।

 

আর যুগ্ম মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান মাগুরা ও বাগেরহাট, মিজানুর রহমান মিনু রংপুর জেলা ও মহানগর, মো. শাহজাহান সুনামগঞ্জ ও মৌলভীবাজার, বরকত উল্লাহ বুলু কুমিল্লা উত্তর ও চাঁদপুর, সালাহ উদ্দিন আহমেদ সিলেট মহানগর ও জেলা।

 

সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার গোলাম আকবর বান্দরবন, হারুন অর রশিদ নওগাঁ ও জয়পুরহাট, মশিউর রহমান কুষ্টিয়া, আসাদুল হাবিব দুলু কুড়িগ্রাম ও গাইবান্ধা, মনিরুল হক চৌধুরী মেহেরপুর, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী লালমনিরহাট, রুহুল কুদ্দস তালুকদার দুলু পটুয়াখালী, আন্তর্জাতিক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন সাতক্ষীরা, নিতাই রায় চৌধুরী চুয়াডাঙ্গা, নাজিম উদ্দিন আলম ঝালকাঠি, যুবদলের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল নাটোর ও প্রচার সম্পাদক জয়নুল আবদিন ফারুক জামালপুর জেলায় গণসংযোগের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

 

গণসংযোগ কর্মসূচির বিষয় জানতে চাইলে লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান নতুন বার্তা ডটকমকে বলেন, “আমি এখনো সফরের দিন নির্ধারণ করিনি। দুই একদিনের মধ্যে অন্যান্যদের সঙ্গে কথা বলে ঠিক করে নির্ধারিত এলাকায় যাবো।” সফরে সংগঠনকে আবারো আন্দোলনমুখি করার নির্দেশনা এবং সরকারের বিরুদ্ধে জনগণকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানানো হবে বলেও জানান তিনি।

 

চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. ওসমান ফারুক নতুন বার্তা ডটকমকে বলেন, “আমাকে নরসিংদী ও টাঙ্গাইলের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। টিমের বাকিদের সঙ্গে কথা বলে শিগগিরই নির্ধারিত এলাকা সফরে যাওয়া হবে।” গণসংযোগ কর্মসূচি মূলত সাংগঠনিক সফর বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

 

আর সাতক্ষীরা জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা ড. আসাদুজ্জামান রিপন নতুন বার্তা ডটকমকে বলেন, “২৪ ও ২৫ তারিখ কর্মসূচি ঠিক করা হয়েছে।”

 

জয়নুল আবদিন ফারুক জানান, “টিমের বাকি সদস্যদের সঙ্গে শুক্রবার সকালে বৈঠক করে জামালপুর সফরের দিন ঠিক করা হবে।”

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।