‘কামারুজ্জামানের রায় কার্যকর করা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার’: এটর্নি জেনারেল

রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম মন্তব্য করেছেন যে জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের রায় কার্যকর করা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। তিনি সোমবার দুপুরে সুপ্রিমকোর্টের নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন।

 

এটর্নি জেনারেল বলেন, ‘আমরা আদালতে সংক্ষিপ্ত রায় চেয়েছিলাম। কিন্তু সেটা পাইনি। এখন মনে হচ্ছে আদালত পূর্ণাঙ্গ রায়ই প্রকাশ করবে। আর এতে করে পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর রায় কার্যকর করতে সময় লাগতে পারে। এটা একটা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার।’

 

এ সময় তিনি আইনজীবী সমিতি ভবনে দুপুর একটায় কামারুজ্জামানের ছেলে হাসান ইকবাল ওয়ামীর সংবাদ সম্মেলন বিষয়েও বক্তব্য দেন। মূলত কামারুজ্জামানের পরিবারের সংবাদ সম্মেলনের প্রতিউত্তর দিতেই এই সংবাদ সম্মেলন করে এটর্নি জেনারেল।

 

সোহাগপুর গ্রামের গণহত্যায় কামারুজ্জামান জড়িত নন বলে তার ছেলে হাসান ইকবালের দাবিকে এটর্নি জেনারেল ‘পাগলের প্রলাপ’ বলে আখ্যায়িত করেন। তিনি বলেন, ‘কামারুজ্জামানের ছেলে যে কথাগুলো এখানে বলেছেন, এসব বক্তব্য তার আইনজীবীরা পুঙ্খানুপুঙ্ক্ষভাবে আদালতে উপস্থাপন করেছেন। এসব বক্তব্য বিবেচনা করেই আদালত তার সম্পর্কে সিদ্ধান্ত দিয়েছেন।’ মাহবুবে আলম বলেন, ‘সর্বোচ্চ আদালত সম্পর্কে একজন যুদ্ধাপরাধীর দম্ভোক্তি এবং শালীনতাবোধ বর্জিত বক্তব্য দুঃখজনক।’

 

তিনি বলেন, ‘অনেক সময় মানুষ পাগলের প্রলাপ বকে। সব পাগলকে তো আর আদালতের সামনে নিয়ে যাওয়া যায় না। সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের ব্যাপারে ক্ষোভ থাকলে তার প্রকাশ এই ধরনের মাধ্যমে হওয়া উচিত নয়।’

 

এটর্নি জেনারেল বলেন, ‘বিশেষ করে ন্যায়ভ্রষ্ট কথাটা তাকে কে শিখিয়ে দিয়েছে আমি জানি না। এটার সম্পূর্ণ অর্থ জেনেই বলা উচিত। অবশ্যই আদালতের প্রতি এ ধরনের বক্তব্য অবমাননাকর।’

 

মৃত্যু পরোয়ানা জারির পর সরকারের সিদ্ধান্তে দণ্ড কার্যকর হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘পরোয়ানা হলে দণ্ড কার্যকর হবে ২০(৩) ধারা মতে, সরকারের নির্দেশ অনুসারে। কাজেই সরকার যেভাবে সময় প্রদান করবে, সেভাবেই রায় কার্যকর হবে।’

 

মাহবুবে আলম বলেন, ‘রিভিউ যদি কেউ করেও সেই রিভিউয়ের জন্য দণ্ড স্থগিত থাকবে না। আপিল বিভাগ স্থগিতাদেশ দেয়ার আগ পর্যন্ত দণ্ড কার্যকরের প্রক্রিয়া কারা কর্তৃপক্ষ চলমান রাখবে।’

 

তিনি বলেন, ‘আমিতো আগাগোড়া যে কথা বলেছি, কাদের মোল্লার ব্যাপারে যা বলেছি, তা থেকে একচুলও বিচ্যুতি হয়নি। টেলিভিশনে আমার বক্তব্যকে কেন জানি ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।’ রাষ্ট্রের এই প্রধান আইন কর্মকর্তা বলেন, ‘আমি সব সময় বলেছি, রিভিউ চলবে না। আর এটা বলেছি, সংবিধান পড়ে আমি যা বুঝেছি, তার আলোকে।’

 

তিনি বলেন, ‘আপিল বিভাগ যদি কাদের মোল্লার রিভিউয়ের রায়ে বলে দেয় যে রিভিউ চলবে, তাহলে তখন বলা যাবে, আমার বক্তব্য সঠিক ছিল না। কিন্তু যে পর্যন্ত রায় না প্রকাশিত হবে, সে পর্যন্ত আমি যেটা বলেছি, সেটা সংবিধানের উপর নির্ভর করেই বলেছি।’

 

এটর্নি জেনারেল বলেন, ‘আমি বলেছি, সংক্ষিপ্ত রায় দিয়েও এটা কার্যকর করা যায়। এর আগেও আমার মতে আদালত থেকে সংক্ষিপ্ত আদেশ গেছে। যদিও সেটা সাঈদীর ব্যাপারে।’

 

তিনি বলেন, ‘সাঈদীর মৃত্যুদণ্ড থেকে যখন যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হলো, সেটা ট্রাইব্যুনালকে সংক্ষিপ্ত আদেশের মাধ্যমে জানানো হয়েছে। কাজেই সংক্ষিপ্ত আদেশে করা যাবে। ট্রাইব্যুনালকে জানালে ট্রাইব্যুনাল ডেথ ওয়ারেন্ট আদেশ করতে পারবে।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।