অতীতের রেকর্ড ভাঙতে খালেদা জিয়া’র সমাবেশকে ঘিরে নতুন সাজে কুমিল্লা

দীর্ঘ ছয়বছর পর শনিবার কুমিল্লা টাউন হল মাঠে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ২০ দলীয় জোট আয়োজীত বিশাল জনসভাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে ভাষন দিবেন। বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলের প্রধানের এ সমাবেশ সফল করতে আয়োজন ও প্রচার-প্রচারণা তুঙ্গে।কিন্তু বিপুল লোকসমাগমের আশা করলেও সমাবেশ মাঠের ধারণ ক্ষমতা কম। তবে বিএনপির শীর্ষ নেতাদের দাবি বিকল্প ভ্যেনু না থাকায় বাধ্য হয়ে টাউন হল মাঠে সমাবেশ করতে হচ্ছে। জানা গেছে, কুমিল্লা শহরে ভ্যেনু স্বল্পতার কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এই মাঠে সমাবেশ করেছেন।

 

এ উপলক্ষে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক, কুমিল্লা মহানগরী ও আশপাশের এলাকা সেজেছে নতুন সাজে।  এদিকে নিরপত্তার স্বার্থে কুমিল্লা জেলা পুলিশ ৪টি কোজ সার্কিট ক্যামেরায় সার্বণিক মনিটরিং করবে। জেলা বিএনপি ও জামায়াতের নেতারা আশা করছেন সমাবেশস্থল ও তার আশেপাশ এলাকা  লোকে লোকরন্য হয়ে যাবে। পুরো কুমিল্লা জনসমাগমের কারনে কার্যতঃ অচল হয়ে পড়বে।

 

আলোচিত ১/১১’র সময়ে অষ্টম সংসদ নির্বাচনের আগে এই জেলা সফর করেছিলেন বিএনপি প্রধান। এবার তিনি নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলনের আগে গণসংযোগ করতে আসছেন। বিএনপি নেতারা বলছেন, সব আয়োজন সম্পন্ন। শনিবার কুমিল্লার ইতিহাসে সর্ববৃহৎ সমাবেশ হবে।  এতবড় সমাবেশে নিরাপত্তায় ব্যবস্থা কেমন থাকবে তা নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে শুরু হয়েছে আলোচনা। এ বিষয়ে কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী জানান, যেভাবে নিরাপত্তা প্রয়োজন ওইভাবে আমরা ব্যবস্থা নেব। এদিকে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে আগে থেকেই কোজ সার্কিট ক্যামেরা লাগানো আছে। যা সারাসরি কুমিল্লার পুলিশ সুপার পর্যবেণ করেন।

 

এছাড়াও সমাবেশস্থলে বাড়তি আরো চারটি কোজ সার্কিট ক্যামেরা দ্বারা সমাবেশস্থল পর্যবেণ করা হবে। মাঠে থাকবে গোয়েন্দা পুলিশের সার্বণিক নজরদারি। জনসভার প্রস্তুতি প্রায় শেষ। জেলা বিএনপি-জামায়াত ও অন্যান্য দলের শীর্ষ নেতারা টাউন হল মাঠে বিভিন্ন অংশ ঘুরে সমাবেশের প্রস্তুতি সম্পর্কে খোঁজখবর নিচ্ছেন।

 

রোজা রেখে মাঠ দখলের প্রস্তুতি জামায়াতের!
বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জনসভায় কুমিল্লা টাউন হল মাঠ দখলে রাখার পরিকল্পনা নিয়ে এগুচ্ছে কুমিল্লা জেলা জামায়াতে ইসলামী। এ জন্য রোজা রেখে সকালেই টাউন হল মাঠে চলে আসবে কুমিল্লা মহানগরের কয়েক হাজার নেতাকর্মী। এছাড়া কুমিল্লা-১১ (চৌদ্দগ্রাম উপজেলা) ও কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসন থেকে বিশেষ উদ্দেশ্যে জামায়াত নেতাকর্মীরা জনসভায় যোগ দেবেন।

 

আর এ উদ্দেশ্য হলো কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম আসন থেকে ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে সাবেক এমপি ডা. সৈয়দ আবদুল্লাহ মোঃ তাহের এবং লাকসাম মনোহরগঞ্জ আসন থেকে দেশের আলোচিত সাবেক সচিব এফএম সোলায়মান চৌধুরীর মনোনয়নের জন্য ২০ দলীয় নেত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা।

 

জামায়াত সূত্র জানায়, তারা জনসভাস্থলে চোখে পড়ার মত সমাগম করবেন। এ জন্য তারা বিভিন্ন উপজেলা থেকে লোক আনার প্রস্তুতি নিয়েছে। ভাড়া করেছে যাত্রীবাহী বাসও। বিশেষ করে চৌদ্দগ্রাম, লাকসাম-মনোহরগঞ্জ ও নাঙ্গলকোট থেকে ব্যাপক লোক আনা হবে। জানা গেছে, কুমিল্লা টাউন হল মাঠের পূর্ব দিকে জামায়াতের জন্য স্থান নির্ধারণ করে দিয়েছে জনসভার মূল আয়োজকরা। কিন্তু জামায়াতের লক্ষ্য থাকবে মাঠে তাদের উপস্থিতির জানান দেয়া।

 

এ জন্য তারা রোজা রেখে সকাল থেকেই মাঠে অবস্থান নেবে। হাতে থাকবে জামায়াতে শীর্ষ নেতাদের মুক্তির দাবি সম্বলিত ব্যানার ফেস্টুন।

খালেদাকে স্বাগত জানাতে সহস্রধিক তোরণ
‘শুভেচ্ছা স্বাগতম-দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আগমন’ ‘বেগম জিয়া আসছে-কুমিল্লা আনন্দ জোয়ারে ভাসছে’ ইত্যাদি শ্লোগান সম্বলিত ব্যানার, ফেস্টুনে ছেড়ে গেছে কুমিল্লা। বিএনপি চেয়ারপার্সন ও ২০ দলীয় জোট নেত্রী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার শনিবারের (২৯ নভেম্বর) কুমিল্লা সফর উপলে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে কুমিল্লা মহানগরীসহ ১৬ উপজেলা বিএনপি।

 

প্রায় এক সপ্তাহ ধরে কুমিল্লা টাউন হলের জনসভাস্থলে মঞ্চ নির্মাণ, মাইক স্থাপনসহ নানা কাজে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন দলের নেতাকর্মীরা। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক হয়ে কুমিল্লায় আসবেন বেগম খালেদা জিয়া।তাই এ মহাসড়কের কুমিল্লা অংশের দাউদকান্দি টোল প্লাজা থেকে শুরু করে কুমিল্লা মহানগরীর জনসভাস্থল পর্যন্ত ৫০ কিলোমিটার এলাকায় সহস্রাধিক তোরণ নির্মাণ করছে বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠন এবং জামায়াত-শিবির’সহ ২০ দলীয় জোটের অন্যান্য শরিকদলের নেতাকর্মীরা।

 

এদিকে নেত্রীর আগমনে কুমিল্লা উত্তর জেলা, দণি জেলা, মহানগরী ও উপজেলা পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত হয়ে উঠেছেন। আবার অনেকে নেত্রীসহ দলের নীতিনির্ধারকদের দৃষ্টি কাড়তে জোট নেত্রী ও উর্ধ্বতন নেতাদের বড় বড় ছবি ও নিজের ছবি সম্বলিত তোরণ, ব্যানার, ফেস্টুন ও পোস্টার সাঁটিয়েছেন। এদিকে মহানগরীসহ প্রতিটি উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রচারণায় মাইকিং, লিফলেট বিতরণসহ বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছেন দলের নেতাকর্মীরা।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাইওয়ে পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন,  এতো তোরণ আমরা আগে আর কখনও দেখিনি। শুধুমাত্র ইলিয়টগঞ্জ বাজার থেকে তীরচর পর্যন্ত এক কিলোমিটার এলাকায় ২৪টি তোরণ করেছেন বিএনপি, জামায়াত, এলডিপিসহ জোটের নেতাকর্মীরা। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দেবিদ্বার উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা সাইফুল ইসলাম শহিদ জানান, জোট নেত্রী কুমিল্লায় আসছেন। আর তিনি মহাসড়কের এ অংশেই যাতায়াত করবেন। তাঁর আগমনকে স্বাগত জানিয়ে বিএনপি-জামায়াত মহাসড়কে লক্ষ লক্ষ টাকা ব্যায় করে অর্ধশতাধিক তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। তোরণ নির্মাতা ও ডেকোরেটর ব্যবসায়ী আলম বলেন, আমি ১১ থেকে ১২ হাজার টাকা দরে ২০টি তোরণ নির্মাণের অর্ডার পেয়েছি। সেগুলো নির্মাণ করতে প্রায় ৬০ হাজার টাকা বাঁশ কিনতে হয়েছে। পাঁচজন শ্রমিক দিন-রাত কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

 

শ্রমিক মাসুদ ও কাশেম জানান, নেতাদের কাছ থেকে মালিকরা অর্ডার রেখে আমাদেরকে চুক্তি দেন। আমরা প্রতিটি তোরণ নির্মাণে ২৫শ’ থেকে ২৮শ’ টাকা দরে চুক্তি নিয়ে কাজ করছি। বৃহস্পতিবার সারা দিন, সারা রাত, শুক্রবার সারা দিন-রাত ও শনিবার সকাল পর্যন্ত কাজ চালিয়ে যাবো। শ্রমিক ইব্রাহীম বলেন, গত চারদিন বাঁশ-কাটা, খুঁটি বসানো ও বাঁধার কাজ করেছি। বৃহস্পতিবার থেকে কাপড় লাগানো ও ব্যানার লাগানোর কাজ শুরু করেছি। শনিবার কুমিল্লা টাউন হল ময়দানে ২০ দলীয় জোটের খালেদা জিয়ার আগমণের আগেই সকল তোরণ নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হবে বলে জানান তোরণ নির্মাতারা।

জনসভায় ২২৬টি মাইক ও ১২টি পজেক্টর স্থাপন
বিএনপি চেয়ারপার্সন ও ২০ দলীয় জোট নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কুমিল্লায় জনসভা উপলে কুমিল্লা জেলাজুড়ে বিএনপি ও জামায়াত শিবিরের অঙ্গ-সংগঠনের নেতা-কর্মী, সমর্থকসহ ২০ দলীয় জোটের অন্যান্য শরীকদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা সৃষ্টি হয়েছে। জোট নেত্রীর আগমন উপলে কুমিল্লা জেলা ও উপজেলা, ইউনিয়নে, ওয়ার্ড এবং পাড়া মহল্লায় সারাদিন চলছে প্রস্তুতি সভা।

 

সরকার বিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে হামলা মামলার হয়রানির শিকার ত্যাগী নেতা-কর্মীরা খালেদা জিয়ার আগমনে সব কান্তি তুচ্ছ করে উজ্জীবিত হয়ে উঠেছে। বেগম জিয়ার আগমন উপলে ইতিমধ্যে কুমিল্লার মহানগরী এলাকা পোষ্টার, ব্যানার, ফেষ্টুন আর তোরণে ছেয়ে গেছে। জোটের এই সমাবেশকে ঘিরে নগর জুড়ে ২২৬ টি মাইক এবং বক্তব্য প্রচারের জন্য ১২ টি প্রজেক্টর স্থাপন করা হয়েছে। যাতে কুমিল্লাবাসী বিভিন্ন এলাকা থেকে ভাষন শুনতে পারেন।

 

এর মধ্যে নগরীর ঈদগাহ মোড়ে ১টি, পুলিশ লাইন মোড়ে ১টি, রাণীর দিঘীরপাড়ে ১টি, হোটেল সালাউদ্দিন মোড়ে ১টি, টমছমব্রিজসহ নগরীর বিভিন্ন জায়গায় প্রজেক্টর স্থাপন করা হয়েছে। জোট নেত্রীর জনসভা সফল করার জন্য প্রতিদিনই পাড়া মহল্লায় বৈঠক করছেন করছে বিএনপি ও জামায়াতের নেতৃবৃন্দরা। সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া কুমিল্লা জনসভায় গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্যে কি বলবেন তা শোনার জন্য অধীর আগ্রহ বিরাজ করছে সাধারণ মানুষের মাঝে। সব মিলিয়ে জোটনেত্রী কুমিল্লায় আগমনকে ঘিরে নেতাকর্মীদের উৎসাহ উদ্দীপনা ও আনন্দ বিরাজ করছে। বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া কুমিল্লা সফর উপলে কেমন প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে জানতে চাইলে জেলা ২০দলের যুগ্ম-আহবায়ক ও জেলা (দক্ষিণ) বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াছিন জানান, প্রতিদিন ৮ থেকে ১০ টি সভা হচ্ছে।

 

প্রত্যেকটি উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড ও পাড়া মহল্লায় মিটিং চলছে। সমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে আজ ঐক্যবদ্ধ কুমিল্লা জেলা বিএনপি। সমাবেশ সফল করার বিষয় জেলা ২০দলের যুগ্ম আহবায়ক ও কুমিল্লা মহানগরী জামায়াতের আমীর কাজী দ্বীন মোহাম্মদ জানান, ২৯ নভেম্বর কুমিল্লায় জোটনেত্রীর বেগম জিয়ার সমাবেশ জনতার মহাসমুদ্র হবে। ইতিমধ্যে আমরা সমাবেশ সফল করার লক্ষে, মহানগরী জামায়াতের কর্মপরিষদ,শুরা সদস্য, থানা আমীর, ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন সভাপতিদের নিয়ে প্রস্তুতি বৈঠক করেছি।

 

এছাড়া বিভিন্ন উপজেলা, ইউনিয়ন, পাড়ায়, মহল্লায়, বাড়ি বাড়ি গিয়ে ব্যাপক প্রচারনা চালানো হচ্ছে। আমরা আশা করি জোটনেত্রী এ সমাবেশের মাধ্যমে কুমিল্লা থেকে সরকার পতন আন্দোলনের ডাক দিবেন।
খালেদা জিয়ার জনসভায় গান গাইবেন আসিফ, রিজিয়া, মনির খান, ন্যান্সি

শনিবার কুমিল্লায় বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জনসভায় সকাল থেকেই জনসভাস্থলের মুক্তমঞ্চে জাসাসের নেতা গাজী মাজহারুল ইসলাম আনোয়ারের নেতৃত্বে জাসাস শিল্পীদের মধ্যে থেকে আসিফ আকবর, রেজিয়া পারভীন, মনির খান, নেন্সিসহ আরো অনেকে সঙ্গীত পরিবেশন করবেন।

 

জনসভায় মহিলাদের সর্বাধিক উপস্থিতি ঘটবে। মাঠের অগ্রভাগে তাদের বসার জন্য সার্বিক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ঢাকা ও কুমিল্লার সাংবাদিকদের জন্য সংবাদ সংগ্রহ, আলোকচিত্র ধারণসহ সার্বিক সুবিধার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।