বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী তরিকুলসহ বিএনপির ৬ নেতার বাড়িতে বোমা হামলা

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী তরিকুল ইসলাম, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাবেরুল হক সাবুসহ ছয় নেতার বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অর্ধশতাধিক বোমা হামলা হয়েছে। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত একটার দিকে সন্ত্রাসীদের একের পর এক বোমা হামলায় শহরজুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

জানা যায়, শহরের ঘোপজেল রোড এলাকার  তরিকুরের বাড়িতে পর পর পাঁচটি বোমা মারে দুর্বৃত্তরা। এতে জানালার কাচ ভেঙে যায়। এ ঘটনায় এই সাবেক মন্ত্রীর পরিবারের সদস্যরা চরম আতঙ্কের মধ্যে পড়েন।

তরিকুল ইসলামের বাড়ির দারোয়ান জানান, রাত একটার দিকে ছয়-সাতজনের একদল সন্ত্রাসী এসে বাড়ির ভেতর বোমা ছোড়ে। তিনটি বোমা বাড়ির ভেতরের মূল গেটের সামনে ও দোতলার জানালায় লেগে একই সঙ্গে বিস্ফোরিত হয়। এরপরই ঘরের সামনে আরো দুটি বোমা বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয়।

হামলার সময় তরিকুল ইসলামের স্ত্রী অধ্যাপক নার্গিস বেগম ছাড়া বাসায় আর কেউ ছিল না। বোমা বিস্ফোরণে কাচ ভেঙে পর্দা ছিড়ে ঘরের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে জালের কাঠি ও স্প্লিন্টার।

গভীর রাতে বোমা বিস্ফোণের শব্দে এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

তরিকুল ইসলামের স্ত্রী নার্গিস বেগম জানান, ‘‘দুর্বৃত্তরা  বাড়ি লক্ষ্য করে পাঁচটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে বাড়ির দোতলার জানালার কাচ ভেঙে গেছে।’’

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, তরিকুলের বাড়িতে হামলার পরপরই জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু, জেলা বিএনপির সহসম্পাদক মিজানুর রহমান খান, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি চৌধুরী শহিদুল ইসলাম নয়নের ছেলে বিপ্লব চৌধুরী, জেলা বিএনপির সহসভাপতি গোলাম রেজা দুলু ও জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খোকনের বাড়িতেও ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় দুর্বৃত্তরা।

যশোর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিকদার আক্কাস জানান, শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থলগুলোতে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।