বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদের গুমের বিশ্বাসযোগ্য ও নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি

সালাহ উদ্দিন আহমেদের ‘গুমের বিশ্বাসযোগ্য ও নিরপেক্ষ’ তদন্তের দাবি জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ)। বুধবার এক বিবৃতিতে নিউইয়র্ক ভিত্তিক সংস্থাটি বলেছে, ‘সালাহ উদ্দিনের গুমের বিশ্বাসযোগ্য ও নিরপেক্ষ তদন্ত দরকার।

 

সালাহ উদ্দিন যে বাসায় আত্মেগোপনে ছিলেন তার কেয়ারটেকারকে উদ্ধৃত করে এইচআরডব্লিউ বলেছে, ‘ডিবি পরিচয়ে বেশ কয়েকজন সাদা পোশাকধারী  ১০ মার্চ রাত ১০টার দিকে ওই ভবনের ভেতর প্রবেশ করে। তারা তাকে তাদের ব্যাজও দেখায়।’

 

‘এরপর আধা ঘণ্টা পরে যখন তারা নেমে আছে তখন দেখা যায় সালাহ উদ্দিনকে হাতকড়া পরিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। এরপর তারা একটি ভ্যানে করে তাকে নিয়ে যায়। অন্য একজন প্রত্যক্ষদর্শীর জানান, এ সময় পাশেই র্যা বের একটি গাড়িও ছিল।’

 

এইচআরডব্লিউ বলছে, ২০০৭ সাল থেকেই বাংলাদেশে  গুমের ঘটনা ঘটেছে, যার বেশিরভাগের সাথেই নিরাপত্তা বাহিনী জড়িত। সংস্থাটি বলছে, ২০১২ সালে বিএনপি নেতা এম ইলিয়াস আলী গুম হলেও এখন পর্যন্ত তার হদিস মেলেনি। গত বছরের মে মাসে নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের র্যা বের সংশ্লিষ্টতা প্রকাশিত হয়। তবে প্রথম দিকে র্যা ব কর্মকর্তারা এ ঘটনা অস্বীকার করে আসছিলেন। সালাহ উদ্দিনকে আটকের কথা অস্বীকার করেছে র্যা ব, ডিবিসহ সব নিরাপত্তা বাহিনী।

 

এইচআরডব্লিউর এশীয় পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডামস বলেন, ‘বিরোধী দলের সদস্যরা গুম হলে তার তদন্তে ব্যর্থতার ইতিহাস বাংলাদেশ সরকারের পুরনো।’

 

তিনি আরো বলেন, ‘কর্তৃপক্ষের (সরকারি বাহিনীর) দ্বারা অনেক গুমের ঘটনা ঘটার যথেষ্ট প্রমাণ থাকার পরও এসব ঘটনার কোনো তদন্ত চালায়নি সরকার। এমনকি জনগণের কাছে ওয়াদা দিলেও নিরাপত্তা বাহিনীর কোনো সদস্যকে জবাবদিহিতার আওতায় আনা হয়নি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।