সালাহ উদ্দিনকে ফেরত দিতে আবারো আহ্বান জানিয়েছেন: খালেদা জিয়া

সালাহ উদ্দিন আহমেদকে ফেরত দিতে আবারো আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। একই সঙ্গে তিনি উৎকণ্ঠা প্রকাশ করে বলেছেন, ‘দুই মাস অতিবাহিত হলেও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সালাহ উদ্দিনকে ফেরত দেয়নি। তাকে নিয়ে পরিবার ও আমাদের সকলের উৎকণ্ঠা দিন দিন আরো গভীর হচ্ছে।’

 

রবিবার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে খালেদা জিয়া এ আহ্বান জানান। এটি পাঠিয়েছেন বিএনপির আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন। এতে খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমি গভীর উদ্বেগের সঙ্গে উল্লেখ করছি যে, বিএনপির অন্যতম শীর্ষস্থানীয় নেতা সালাহ উদ্দিন আহমেদকে রাজধানীর উত্তরা এলাকার একটি বাসা থেকে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোকেরা ধরে নিয়ে যাবার পর দুই মাস পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত তার কোনো হদিস পাওয়া যাচ্ছে না।’

 

তিনি অভিযোগ করেন, ‘শেখ হাসিনার লাগাতার দুই আমলে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলী, ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক কাউন্সিলর চৌধুরী আলম, সাবেক সংসদ সদস্য লাকসামের বিএনপি নেতা সাইফুল ইসলাম হিরু, হুমায়ুন কবির পারভেজ, ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন ও সিলেটের ছাত্রনেতা ইফতেখার আহমদ দিদারসহ বিরোধী দলের বহু নেতাকর্মীকে বলপূর্বক গায়েব করে ফেলা হয়েছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোকজন তাদের আটক করে নিয়ে যাবার পর থেকে দীর্ঘদিনেও আর কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। জানা যায়নি তাদের ভাগ্যে কি ঘটেছে।’

 

সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গুম করে ফেলা এসব নেতাকর্মী ও নাগরিকদের স্বজনেরা তাদের প্রিয়জনের ফিরে আসার প্রত্যাশায় উৎকণ্ঠার প্রহর যাপন করছেন। তারা জানেন না তাদের নিখোঁজ স্বজনেরা আটক অবস্থায় বিনা বিচারে হত্যার শিকার হয়েছেন কি না। খুনের শিকার হয়ে থাকলে সেই খুনের বিচার দূরে থাকুক, লাশ পর্যন্ত তারা পাননি। জানতে পারেননি মৃত্যুর তারিখটিও। সুযোগ পাননি প্রিয়জনের লাশ দাফন, কবর জিয়ারত কিংবা মৃত্যু দিবসে দোয়া খায়ের ও মাগফিরাত কামনা করার।’

 

তিনি বলেন, ‘এই পটভূমিতে সালাহ উদ্দিনের জন্য তার পরিবার এবং আমাদের সকলের উৎকণ্ঠা দিন দিন আরো গভীর হচ্ছে। আমরা বারংবার তাকে ফিরিয়ে দেয়ার দাবি করে আসছি। তার স্ত্রী, সাবেক এমপি হাসিনা আহমেদ প্রধানমন্ত্রীর কাছে বারবার আবেদন করছেন তার স্বামীকে ফিরিয়ে দেয়ার জন্য। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী সালাহ উদ্দিনকে নিয়ে নিষ্ঠুর কটাক্ষ করলেও তাকে ফিরিয়ে দেয়ার কোনো উদ্যেগ নেননি।’

 

খালেদা জিয়া দাবি করেন, ‘সালাহ উদ্দিনের বিষয়ে তার স্ত্রী থানায় মামলা করতে গেলেও মামলা নেওয়া হয়নি। যদিও পুলিশ নিজে থেকে একটা জিডি করেছে, কিন্তু উচ্চ আদালতের নির্দেশনা সত্ত্বেও তার সন্ধান আজো দেয়া হয়নি।’

 

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘সালাহ উদ্দিন বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বিএনপির অন্যতম যুগ্ম-মহাসচিব ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী। তার মতো একজন গুরুত্বপূর্ণ নাগরিককে দীর্ঘদিন গায়েব করে রেখে যদি সরকার ও রাষ্ট্রীয় প্রশাসন নির্বিকার থাকতে পারে তাহলে সাধারণ নাগরিকদের নিরাপত্তা কোথায়? দেশে আইন ও প্রাতিষ্ঠানিকতা কি বিলুপ্ত হয়ে গিয়েছে? কাউকে কি কখনো কোনো কিছুর দায় নিতে বা জবাবদিহি করতে হবে না?’

 

খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমি আবারো দাবি জানাচ্ছি, সালাহ উদ্দিনকে অবিলম্বে মুক্তি দিয়ে তার পরিবারের কাছে ফেরত দেয়া হোক। দাবি করছি, সকল নাগরিকের বেঁচে থাকার অধিকার, নিরাপত্তা ও ন্যায়বিচার পাবার সুযোগ নিশ্চিত করা হোক। দাবি জানাচ্ছি- সর্বস্তরে স্বেচ্ছাচারিতার বদলে আইনের শাসন ও প্রাতিষ্ঠানিক রীতি-নীতি পুনঃপ্রতিষ্ঠিত করা হোক। দাবি করছি- আইনের প্রয়োগ, তদন্ত ও বিচারিক ক্ষেত্রে নৈরাজ্যের অবসান ঘটিয়ে শৃঙ্খলা ও নিয়ম-নীতি ফিরিয়ে আনা হোক।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।