দুর্নীতির কারণে বাংলাদেশে একাধিক প্রকল্পের তহবিল প্রত্যাহার: বিএনপি

সরকারের দুর্নীতি, অস্বচ্ছতা ও অব্যবস্থাপনার কারণে উন্নয়ন সহযোগী বন্ধু রাষ্ট্রগুলো বাংলাদেশ থেকে তাদের তহবিল সরিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। সম্প্রতি বিশ্বব্যাংক, জাইকা ও ইউএনডিপি বাংলাদেশে একাধিক প্রকল্পের তহবিল প্রত্যাহার কিংবা বন্ধ করেছে।

 

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শনিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির মুখপাত্র আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, বিগত সিটি করপোরশন নির্বাচন, উপজেলা, পৌরসভাসহ বিভিন্ন স্থানীয় সরকার নির্বাচন ও বিগত ৫ জানুয়ারির প্রহসনের নির্বাচন দেশ বিদেশে কারো কাছে গ্রহণযোগ্যতা পায়নি। এসব নির্বাচনে অনিয়ম নিয়ে বিভিন্ন সহযোগী দেশ সুষ্ঠু তদন্তের দাবি তুলেছিল। কিন্তু সরকারের আজ্ঞাবহ সেবাদাস নির্বাচন কমিশন তা করেনি। তদন্ত না করে তারা গেজেট প্রকাশ করেছে।

 

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন সরকারের সেবাদাসের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে।এ কশিশন দিয়ে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হওয়া সম্ভব নয়। এসব কারণে জনগণের সঙ্গে উন্নয়ন সহযোগিরাও হতাশ হয়েছে। কারন বাংলাদেশের সহযোগিতায় তাদের দেওয়া ফান্ড সেদেশের জনগণের ট্যাস্কের টাকা। সেদেশের জনগণের কাছে জবাবদিহিতা করতে হয়।

 

বিএনপির এই নেতা বলেন, বিএনপি দাবি করছে সিইসি কাজী রকীব উদ্দীনসহ সকল কমিশনকে অবিলম্বে পদত্যাগ করতে হবে। বিগত ৫ জানুয়ারি নির্বাচন সকল গ্রহনযোগ্যতা হারিয়েছে। ঐ নির্বাচন ছিল একটি ঘোষণা দেওয়ার নির্বাচন। সে নির্বাচনে সামরিক ফরমানের মতো অনেককে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে। তা হয়েছে সেবাদাস সিইসি রকীব উদ্দীন নামের লোকটির প্রত্যক্ষ সহযোগিতায়।

 

তার অভিযোগ, পবিত্র রমজানের সংযমের মধ্যেও সরকার দলীয় ভোটারবিহীন সংসদ সদস্যদের নেতৃত্বে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের উপর বিশেষ করে ইফতার পার্টির মতো অরাজনৈতিক সামাজিক কর্মসূচিতে হামলা চালানো হচ্ছে।

 

ড. রিপন বলেন, আমরা বলতে চাই না এটা সরকারের একেবারে উপরমহলের সিদ্ধান্ত। অনতিবিলম্বে আপনাদের ক্যাডার বাহিনী সমালান। রোজার মাস বলে আমরা আপনাদের এ ক্যাডারদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছি না। আমাদের নেতাকর্মীরা আর কতদিন সংযম দেখিয়ে যাবে তা নিয়ে আমরা সন্দিহান।

 

এক প্রশ্নের জবাবে রিপন বলেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো. নাসিম তাচ্ছিল্য করে বলেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনীতি লেডিস ক্লাবে ঢুকে গেছে। আমরা নাসিমের এ বক্তব্যর জবাবে বলতে চাই বিএনপিকে মাঠে নামতে না দিয়ে ঘরের মধ্যে ঢুকিয়ে রেখেছেন। এটা কি আপনাদের ক্রেডিট না, ফ্যাসিবাদী আচরণ।

 

তিনি বলেন,  পুলিশের আইজি শহীদুল হক বলেছেন, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের কর্মকাণ্ডের কারণে সরকারের জনপ্রিয়তা কমছে। একজন উর্দি পরা লোক হয়ে আইজি বুঝতে পারছেন সরকারের জনপ্রিয়তার পারদ ক্রমশ নীচের দিকে নামছে। অথচ আওয়ামী লীগের মতো একটি বৃহৎ গণতান্ত্রিক দলের নেতারা এটা বুঝতে পারছেন না-তা আমরা বিশ্বাস করতে চাই না।

 

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুববিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সানা উল্লাহ মিয়া, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদ তালুকদার, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।