সরকার নিজের ফাঁদে ধরা পড়েছে: মাহবুব

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছেন, পশ্চিমা বিশ্বের সহযোগিতা পাওয়ার জন্য শেখ হাসিনার আশপাশের লোকজন কথায় কথায় জঙ্গিবাদ বলতেন। সরকার এখন তার পাতা ফাঁদে নিজেই ধরা পড়েছে। তাদের গদি নড়বড় হয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ জাতীয় দল আয়োজিত ‘জঙ্গিতত্বের আবিস্কার ! সংকট ও পরিণতি- মুক্তি কোন পথে?’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

 

বাংলাদেশ বর্তমানে চরম ক্লান্তিলগ্ন অতিক্রম করছে মন্তব্য করে মাহবুব বলেন, সরকার দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্র বানানোর সমস্ত আয়োজনের শেষ পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। সরকার জঙ্গিবাদের প্রচার করে দেশের ইমেজ ক্ষুণ্ন করেছে। বিশ্বে কয়েকটি দেশের ট্রাভেল এলার্ট জারি করা দেশের জন্য লজ্জাজনক।

 

প্রধানমন্ত্রীর পদক পাওয়া প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, ‘দেশে এখন পদক বাণিজ্য চলছে। পদক বাণিজ্য দিয়ে চলমান সমস্যার সমাধান হবে না। সমস্যা রাজনৈতিকভাবে সমাধান করতে হবে। এর জন্য প্রয়োজন একটি নির্দদলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সুষ্ঠ নির্বাচন।’

 

প্রবীণ এই আইনজীবী বলেন, ‘আওয়ামী সরকার প্রহসনের নির্বাচনে ক্ষমতায় এসে জনগণের মতামত ছাড়াই সংবিধান পরিবর্তন করে একদলীয় শাসন কায়েম করতে চাচ্ছে। অতীতে অনেক বড় বড় নেতা ক্ষমতার অপব্যবহার করে চিরকাল ক্ষমতায় থাকতে চেয়েছিল- তারা পারে নাই। আপনারাও পারবেন না। তাই বর্তমান সংবিধার পরিবর্তন করুন যাতে জনগণ ভোট দেওয়ার অধিকার পায়।’

 

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনার লজ্জা হওয়া উচিৎ। আপনি কিভাবে প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন আপনি ভুলে যেতে চাইলেও বিশ্বের মানুষ ভুলে নাই। আপনাকে অনেক আবেদন নিবেদন করে বিদেশ যেতে হয়। আপনার কথা বলার নৈতিক সাহস নেই।

 

তিনি বলেন, সরকারের পায়ের নিচে মাটি নেই। জঙ্গিবাদ ও উন্নয়নের ফুলঝুরি দিয়ে তারা ক্ষমতাকে দীর্ঘস্থায়ী করতে চাচ্ছে কিন্তু তাদের সে আশা বেশি দিন থাকবে না। ‘আপনারা যদি দেশের উন্নয়ন ও জনগণের মঙ্গল করে থাকেন তাহলে সুষ্ঠু নির্বাচন দিন। জনগণ আপনাদের লুফে নিবে। কিন্তু সে সাহস আপনার নেই। বর্তমান সরকার গণমাধ্যমে অলিখিত সেন্সরশিপ আরোপ করেছে।

 

ফাঁসির দড়ি ফুরিয়ে যাবে

জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির সভাপতি শফিউল আলম প্রধান বলেন, শেখ হাসিনা জঙ্গি, জঙ্গি খেলা শুরু করেছেন। বিদেশিদের আকৃষ্ট করার জন্য বিদেশিদের কাছে জঙ্গি দমনের কথা বলছেন। তার ক্ষমতার জন্য দেশের ইমেজ নষ্ট হতে পারে না। দেশে জঙ্গিবাদ নেই। জঙ্গিবাদের প্রচার করে পার পাওয়া যাবে না।

 

তিনি বলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ফাঁসি বহাল রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে আমি কিছু বলবো না। তবে ফাঁসির দড়ি দেখিয়ে , গুলি করে আন্দোলন বন্ধ করতে চায় সরকার। সরকার জানে না ফাঁসির দড়ি ফুরিয়ে যাবে, গুলি শেষ হয়ে যাবে- তারপরও গণতন্ত্রের জন্য জনতার আন্দোলন চলবে।

 

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি অ্যাডভোকেট এহসানুল হুদার সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ ন্যাপ ভাসানীর চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানী, মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূইয়া, বাংলাদেশ জাতীয় দলের যুগ্ম মহাসচিব এ এইচ এম শামীম প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।