দীর্ঘ এক বছর পর বড় সমাবেশে খালেদা

নারায়ণগঞ্জ থেকে ঢাকা, ২০১৪ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৬ সালের জানুয়ারি। প্রায় ১৩ মাস পর বড় ধরনের উন্মুক্ত সমাবেশে বক্তব্য দিতে যাচ্ছেন বিএনপি চেয়াপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

 

মঙ্গলবার নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে দুপুর দুইটায় হবে এই সমাবেশ। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির বিতর্কিত নির্বাচনের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি ঘিরে ডাকে এই সমাবেশ।

 

এ নিয়ে কম নাটক হয়নি। প্রথমে বিএনপি সমাবেশ করতে চেয়েছিল রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। সেখানেই একই দিন সমাবেশ ডেকে বসে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। দেখা দেয় উত্তেজনা।

 

পরে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সম্মতি না দেখে দুদলই দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করার অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন। সেটিরই ফায়সালা হয় গতকাল সোমবার সন্ধ্যা নাগাদ।

 

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ‘বিশেষ বিবেচনা’ ও ডিএমপি শর্তের বেড়াজালে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে সমাবেশ করার অনুমতি দেয়।

 

ফলে এক বছরের বেশি সময় পর উন্মুক্ত কোনো স্থানে বড় ধরনের রাজনৈতিক সমাবেশে যোগ দিতে পারছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

 

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন প্রতিহতে সবশেষ ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে ২০-দলীয় জোটের জনসভায় বক্তব্য দিয়েছিলেন খালেদা জিয়া।

 

এরপর গতবছরের ৫ জানুয়ারি নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে খালেদা জিয়ার যোগ দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু একদিন আগের সন্ধ্যা থেকে তাকে গুলশানের নিজ কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রাখে সরকার।

 

নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে সবশেষ ২০১২ সালে বক্তব্য দেন খালেদা জিয়া। অবশ্য গত বছর পয়লা বৈশাখে দলীয় কার্যালয়ের সামনের অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি। সেখানে সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি-সমর্থিত দুই মেয়র প্রার্থীর পক্ষে ভোট চান।

 

পরে দুই মেয়র প্রার্থীর পক্ষে প্রচার চালাতে রাজপথেও নেমেছিলেন খালেদা জিয়া। এ সময় তার গাড়িবহরে বেশ কয়েকবার ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা হামলা চালায়।

 

এদিকে, ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিতে আজ রাজধানীতে আওয়ামী লীগও সমাবেশ করবে। বেলা আড়াইটায় বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ ও ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কের রাসেল স্কয়ারে দুটি সমাবেশ করবে ক্ষমতাসীন দলটি।

 

এছাড়া হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি আজ বেলা সাড়ে ১১টায় রাজধানীর দোলাইরপাড়ে ‘গণতন্ত্রের জন্য শান্তির মিছিল’ করবে।

 

গত বছর থেকে ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের বর্ষপূর্তিকে আওয়ামী লীগ ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ আর বিএনপি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ হিসেবে পালন করছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।