তারেকের ঠিকানায় চিঠি পৌঁছেছে কি না জানতে চায় হাইকোর্ট

অর্থপাচারের মামলায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দেয়া আত্মসমর্পণের নোটিশ লন্ডনে তার ঠিকানায় পৌঁছানো হয়েছে কি না তা জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট। আগামী তিনদিনের মধ্যে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটকে এ তথ্য জানাতে বলা হয়েছে।

 

রবিবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি আমির হোসেনের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেয়। একইসঙ্গে অর্থপাচার মামলায় তারেক রহমানকে খালাসের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল শুনানির দিন নির্ধারণের জন্য আগামী ৩ মার্চ ধার্য করা হয়েছে।

 

অর্থপাচার (মানিলন্ডারিং) মামলায় তার খালাস পাওয়া রায়ের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা আপিলের পর ২০১৪ সালের ১৯ জানুয়ারি হাইকোর্ট তারেক রহমানকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেয়। কিন্তু তিনি আত্মসমর্পণ করেননি।

 

এরপর মামলাটি দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কার্যতালিকায় এলে গত ১২ জানুয়ারি আবারো বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।

 

হাইকোর্ট বিভাগ থেকে এ বিষয়ে ২০ জানুয়ারি ও ২১ জানুয়ারি দুইটি পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেয়। বিষয়টি আদালতকে জানানোর পর সমনের নোটিস তারেক রহমানের কাছে পাঠানো হয়েছে কি না তা জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট।

 

২০১৩ সালের ১৭ নভেম্বর তারেক রহমানকে বেকসুর খালাস দিয়ে তার বন্ধু গিয়াস উদ্দিন আল মামুনকে অর্থপাচার মামলায় সাত বছরের কারাদণ্ড দেয় ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালত। রায়ে কারাদণ্ডের পাশাপাশি মামুনকে ৪০ কোটি টাকা জরিমানাও করা হয়। পাচারকরা ২০ কোটি ৪১ লাখ ২৫,৬১৩ টাকা রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করারও নির্দেশ দেয় আদালত। এ রায়ের বিরুদ্ধে ওই বছরের ৫ ডিসেম্বর আপিল করে দুদক।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।