রাষ্ট্রধর্ম: প্রধান বিচারপতি বরাবর হেফাজতের স্মারকলিপি

সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিলের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়েছে হেফাজতে ইসলাম। সোমবার সকাল ১০টার দিকে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহা বরাবর দেয়া এক স্মারকলিপিতে সংগঠনটির পক্ষ থেকে এ দাবি জানানো হয়।

 

সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্টার জেনারেলের মাধ্যমে হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগর কমিটির যুগ্ম সদস্য সচিব ফজলু রহমান কাসেমীর নেতৃত্বে এ স্মারকলিপি দেয়া হয়।

 

স্মারকলিপিতে বলা হয়, সংবিধানের অনুচ্ছেদ ২ এর (ক) অনুযায়ী, প্রজাতন্ত্রে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম। তবে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টানসহ অন্য ধর্ম পালনে রাষ্ট্র সমমযার্দা ও সমঅধিকার নিশ্চিত করিবে। যা দীর্ঘ ২৮ বছর যাবত সংবিধানে সন্নিবেশিত রয়েছে।

 

রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাংলাদেশের অধিকাংশ জনগণের চিন্তা-চেতনা ও বিশ্বাসের প্রতিফলন। এটি সংবিধানে একটি প্রতিষ্ঠিত বিষয়। একে চ্যালেঞ্জ করে রিট করায় সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণ গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণের আবেগ অনুভূতির সঙ্গে জড়িত। একে বাতিলের কোনো উদ্যোগ এদেশের জনগণ কোনোভাবেই বরদাস্ত করবে না। এ ধরনের কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পদক্ষেপ নেয়া হলে তা সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগোষ্ঠীর ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতেরই সামিল হবে। অনাকাঙ্ক্ষিত কোনো পরিস্থিতির দায় তৌহিদী জনতা নেবে না বলেও স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়।

 

প্রথমে হাইকোর্টে যেতে তাদেরকে বাধা দেয়া হলেও পরে পুলিশ তাদের একটি প্রতিনিধি দলকে ভেতরে যাওয়ার অনুমতি দেয়। আজ রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম নিয়ে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চে শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

 

সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলামকে বাদ দেয়ার ষড়যন্ত্রের অভিযোগে জামায়াত ইসলামও আজ সারাদেশে হরতাল ডেকেছে।

 

হেফাজতে ইসলামও গত শুক্রবার বিক্ষোভ করে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় হেফাজত আজ প্রধান বিচারপরিত সঙ্গে দেখা করছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।