জনগণের স্বার্থে যা যা করা দরকার তাই করবে বিএনপি

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ‘উগ্রবাদ-জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে জাতীয় ঐক্য না হলে নিজ দায়িত্ববোধ থেকে দেশ ও জনগণের স্বার্থে যা যা করা দরকার তাই করবে বিএনপি। দেশের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে শনিবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

 

জামায়াতকে ছাড়া ঐক্যের ব্যাপারে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নজরুল ইসলাম বলেন,  ‘জামায়াতকে জাতীয় ঐক্যের অল্টারনেটিভ করছেন কেন?  একটাকে আরেকটার সাথে মিলাচ্ছেন কেন?  আওয়ামী লীগতো স্বৈরাচারী এরশাদকে নিয়ে সরকার গঠন করছে।  বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া জাতীয় ঐক্য গঠনে বিভিন্ন শ্রেণির মানুষের সাথে আলোচনা করেছেন। প্রয়োজন হলে আরো করবে। জাতীয় ঐক্য গঠনের কাজ গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়ে আছে।’

 

তিনি বলেন, ‘অলটারনেটিভ করার চেষ্টা করছেন কেন? আমরা বলছি জাতীয় ঐক্যের কথা। সেখান আলোচনা যখন শুরু হবে, তখন এটি দেখা যাবে।’ ‘রাজাকার-স্বৈরাচারদের সঙ্গে যখন সরকার গঠন হয়, এটা নিয়ে তখন আপনারা প্রশ্ন করেন না কেন?’

 

জাতীয় ঐক্য গঠন সময়ের দাবি উল্লেখ করে তিনি বলেন,  ‘সরকার এ দাবিকে উপেক্ষা করে বিএনপিসহ বিরোধী দলের নামে ব্লেম-গেম করছে। মূলত তারা উগ্রবাদ-জঙ্গিবাদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে। সরকার এ পথ থেকে বেরিয়ে এসে জাতীয় ঐক্য গঠন করলে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জল হবে এবং দেশ এগিয়ে যাবে।’

 

বিএনপির এই নেতা আরো বলেন, ‘গুলশানে হামলার পর  বিএনপির অসংখ্য নেতাকর্মীকে গণগ্রেপ্তার করা হচ্ছে। এর আগেও বিএনপির প্রায় ৪ হাজার নেতাকর্মীতে গ্রেপ্তার করছে। বিরোধী দল ধ্বংসের সর্বনাশা খেলায় মেতে উঠেছে সরকার। এতে অপরাধীরা ধরাছোয়ার বাহিরে থেকে উৎসাহিত হয়ে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করছে।’

 

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট মজিবুর রহমান সারোয়ার, খায়রুল কবির খোকন, হারুন অর রশিদ  প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।