জিনপিংয়ের সঙ্গে খালেদার বৈঠক, প্রমাণ করুন সরকার নির্বাচিত নয়

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, একটা দেশের রাষ্ট্রপতি অন্য দেশে গেলে সে দেশের সরকার প্রধানের সঙ্গে, সংসদের বিরোধী দলের প্রধানের সঙ্গে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু চীনের রাষ্ট্রপতি বর্তমান সরকারের তথাকথিত বিরোধী দলের নেতার সঙ্গে বৈঠক না করে বিএনপির প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে বৈঠক করেছেন। এতে এটাই প্রমাণ হয় যে, চীনও স্বীকার করে নিলো বর্তমান সরকার জনগণ দ্বারা নির্বাচিত নয়।

 

শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির মিলনায়তনে ‘চীনের প্রেসিডেন্টের বাংলাদেশ সফর-ভূ-আঞ্চলিক রাজনীতির নতুন বার্তা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা) এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

 

চীনের প্রেসিডেন্ট দুই দেশের জনগণের মধ্যে বন্ধুত্ব চান বলে মন্তব্য করে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, এই সফরে দুই দেশের মানুষের স্বার্থ রক্ষা হবে।

 

তিনি আরো বলেন, চীনের রাষ্ট্রপতির বাংলাদেশ সফর বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে অত্যন্ত তাৎপর্যপুর্ণ। বাংলাদেশ ও চীন মনে করে তারা প্রতিবেশী। চীনের সঙ্গে আমাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক অনেক ভালো।

 

ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, চীন পৃথিবীর এক নম্বর অর্থনৈতিক শক্তিতে রূপান্তরিত হয়েছে। এখান থেকে আমাদের শিক্ষা নেয়ার অনেক কিছুই আছে। চীন আমাদেরকে সব সময় সহযোগিতা করেছে। চীন ও বাংলাদেশের জনসংখ্যার ঘনত্ব একই রকম। চীন যদি এত উন্নতি করতে পারে তাহলে আমরা কেন পারব না। অর্থনৈতিক উন্নতির জন্য একটি সুষ্ঠু রাজনীতি প্রয়োজন। যদিও বাংলাদেশ সরকার মানুষকে বোঝাতে চেষ্টা করেছেন যে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি ভালো।

 

তিনি বলেন, চীন কীভাবে প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে ডাবল ফিগার করে সেখান থেকে আমাদের শিক্ষা নেয়ার আছে। চায়না বিশ্বের শান্তির রাজনীতির ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। বাংলাদেশ আজকে আধিপত্যবাদের শিকার। আমরা পানির ন্যায্য হিস্যা পাচ্ছি না। আমাদের ভৌগলিক অবস্থা তিনদিকে ভারত। আমাদের জনসংখ্যা ১৬ কোটি এবং আমাদের সামনে রয়েছে বঙ্গোপসাগর। আমরা ভূ-রাজনৈতিক এলাকায় বসবাস করছি। আমাদের এখানে কমমূল্যে শ্রম পাওয়া যায়। চীনের রাষ্টপতি দুই দেশের জনগণের মধ্যে বন্ধুত্ব চান।

 

এ সময় জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধানসহ আয়োজক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।