খালেদাকে ১ ডিসেম্বর হাজিরের নির্দেশ

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় আত্মপক্ষ শুনানির জন্য বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আগামী ১ ডিসেম্বর আদালতে হাজিরের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

 

বৃহস্পতিবার মামলাটিতে খালেদা জিয়ার পক্ষে আত্মপক্ষ শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু অসুস্থতার কারণে খালেদা জিয়া আদালতে হাজির হতে পারেননি জানিয়ে তার পক্ষে সময়ের আবেদন করেন আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া।

 

পুরান ঢাকার বকশিবাজারস্থ কারা অধিদপ্তরের প্যারেড মাঠে স্থাপিত অস্থায়ী ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ জজ আবু আহমেদ জমাদার সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে আত্মপক্ষ শুনানির তারিখ ১ ডিসেম্বর ধার্য করেন। ওই দিন অবশ্যই খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজিরের নির্দেশ দেন বিচারক। ১ ডিসেম্বর খালেদা জিয়া আত্মপক্ষ শুনানিতে উপস্থিত না হলে তার জামিন বাতিল করা হবে বলে জানান বিচারক।

 

এর আগে এই মামলায় ১০ নভেম্বর আদালতে হাজিরা দেন খালেদা জিয়া। ওই দিন তদন্ত কর্মকর্তাকে তার পক্ষে জেরা করা হয়। জেরা শেষে আত্মপক্ষ শুনানির বিষয়ে আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করবেন জানিয়ে দু‘সপ্তাহ সময় নেন খালেদা জিয়া।

 

ওইদিন আদালত সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে ২৪ নভেম্বর তাকে আদালতে হাজির হতে নির্দেশ দেন।

 

এদিকে একই আদালতে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলাটির বিচারকার্য চলছে। মামলাটিতে তারেক রহমানের পক্ষে তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক হারুন অর রশিদকে জেরা করছেন আইনজীবীরা। তারেক রহমানের পক্ষে জেরা করছেন বোরহান উদ্দিন। এই মামলায় গত ১৬ নভেম্বর খালেদা জিয়ার পক্ষে তদন্ত কর্মকর্তাকে জেরা শেষ হয়েছে।

 

প্রসঙ্গত, এতিমদের জন্য বিদেশ থেকে আসা ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলাটি দায়ের করে দুদক।

 

২০০৯ সালের ৫ আগস্ট দুদক অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়।

 

অন্যদিকে ২০১১ সালের ৮ আগস্ট খালেদা জিয়াসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলাটি দায়ের করে দুদক। এ মামলায় ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি আদালতে চার্জশিট দাখিল করে দুদক। এ মামলায় ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করা হয়।