ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ, ৪ উইকেট হারিয়ে ৬৭ রান

খুলনা, ২৪ নভেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)- ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খুলনায় দ্বিতীয় টেস্টের চতুর্থ দিনের দ্বিতীয় সেশনে ৪ উইকেটে ৬৭ রান করেছে বাংলাদেশ। এক প্রান্তে  মুশফিকুর রহিম ব্যাট করছেন। অন্য প্রান্তে সাকিব আল হাসান । সাজঘরে ফিরে গেছেন নাঈম ইসলাম , তামিম ইকবাল, নাজিম উদ্দিন,শাহরিয়ার নাফিস । ৯ উইকেটে ৬৪৮ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে ২৬১ রানের লিড নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে ৪ উইকেটে ৫৬৪ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সে সময় চন্দরপল ১০৯ ও রামদিন ৪ রানে ব্যাট করছিলেন। দিনের প্রথম ঘন্টা নিরাপদেই কাটিয়ে দিয়েছিলেন তারা।

জুটিকে ৭৫ পর্যন্ত নিয়ে যাওয়ার পর আঘাত হানেন সাকিব আল হাসান। ঢাকা টেস্টে শতক করা রামদিনকে (৩১) ১৯৪তম ওভারের দ্বিতীয় বলে মুশফিকুর রহিমের ক্যাচে পরিণত করেন তিনি। তিন বল পরে রানের খাতা খোলার আগে অধিনায়ক ড্যারেন স্যামিকে ফিরিয়ে দিয়ে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বোলার হিসেবে টেস্টে একশ উইকেট নেন সাকিব।

পরের ওভারে তেমন সুবিধা করতে না পারলেও মধ্যাহ্ন-বিরতির আগে শেষ ওভারের শেষ দুই বলে বীরাসামি পারমল ও সুনীল নারায়ণকে ফিরিয়ে দিয়ে স্বাগতিক শিবরে স্বস্তি নিয়ে আসেন সাকিব। এই দুই উইকেটের সৌজন্যে সাবেক বাঁহাতি স্পিনার মোহাম্মদ রফিককে (১০০ উইকেট) পেছনে ফেলে দেশের পক্ষে সর্বোচ্চ উইকেটের রেকর্ড নিজের করে নেন সাকিব (১০২)।

দিনের প্রথম সেশনে ৭৫ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ৮ উইকেটে ৬৩৯ রান নিয়ে মধ্যাহ্ন-বিরতিতে যায় অতিথিরা। বিরতির পর হ্যাটট্রিকের অপেক্ষায় থাকা সাকিবকে হতাশ করলেও বেশি দূর এগোয়নি ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস। সোহাগ গাজী ফিদেল এডওয়ার্ডসকে সাকিবের ক্যাচে পরিণত করলে ৯ উইকেটে ৬৪৮ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে অতিথিরা।

শেষ পর্যন্ত ১৫০ রানে অপরাজিত ছিলেন চন্দরপল। এনিয়ে পাঁচবার টেস্টে দেড়শ রান করলেন তিনি। চলতি সিরিজে দ্বিতীয়বার। তার ২৮২ বলের ইনিংসটি ১২টি চার ও ১টি ছক্কা সমৃদ্ধ।

১৫১ রানে ৪ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের সেরা বোলার সাকিব। অফস্পিনার সোহাগ ৩ উইকেট নেন ১৬৭ রানে।

টেস্টে এটাই বাংলাদেশের বিপক্ষে সর্বোচ্চ রান। এর আগে ২০০৭ সালে ঢাকায় স্বাগতিকদের বিপক্ষে ৩ উইকেটে ৬১০ রানে ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। ২০০৪ সালে কিংস্টনে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৪ উইকেটে ৫৫৯ রানে ইনিংস ঘোষণা করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ করে ৩৮৭ রান।

ঢাকা টেস্ট জিতে দুই ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।