শেষ ম্যাচে স্বাগতিক ভারত ১০ রানের সান্ত্বনার জয় - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

শেষ ম্যাচে স্বাগতিক ভারত ১০ রানের সান্ত্বনার জয়



খেলা ডেস্ক, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

ভারত-পাকিস্তান মহারণের উত্তেজনা ছড়িয়ে শেষ ম্যাচে স্বাগতিক ভারত ১০ রানের সান্ত্বনার জয় পেয়েছে। ফলে সফরকারীদের কাছে ধবল ধোলাইয়ের লজ্জা থেকে রেহাই পেলো ধোনির বাহিনী। দিল্লিতে টস জিতে ভারত ১৬৭ রানে অলআউট হয়। জয়ের লক্ষ্যে পাকিস্তান ৭ বল হাতে রেখে ১৫৭ রানে গুটিয়ে গেলে ১০ রানের হার মানতে বাধ্য হয়। অবশ্য তিন ম্যাচের সিরিজে প্রথম দুটি জিতে সিরিজ নিজেদে করে নিয়েছে মিসবাহ-উল হকের দল।

১৬৮ রানের জয়ের লক্ষ্যে ১৪ রানে পাকিস্তান হারিয়ে বসে কামরান আকমল (০) ও ইউনিস খানের (৬) উইকেট। দুটি উইকেটই তুলে দারুণভাবে জবাব দেয় তরুণ ভুবেনশ্বর কুমার। এরপর নাসির জামশেদকে নিয়ে অধিনায়ক মিসবাহ-উল হক দলের হাল ধরেন। ৪৭ রানের জুটি জামশেদের (৩৪) আউটে ভাঙে দলীয় ৬১ রানে।

মিসবাহ আর উমর আকমল ৬২ রানের জুটি গড়ে দলকে ভালোভাবে জয়ের দিকে নিয়ে যেতে থাকেন। দলীয় ১১৩ রানে মিসবাহ আউট হওয়ার মধ্যদিয়ে পাকিস্তানী ব্যাটিংয়ে রীতিমত মোড়ক লাগে। ক্রিজে এসেই ফিরে যান শোয়েব মালিক। এরপর আশা হয়ে থাকা উমর আকমলও স্ট্যাম্পিং হন দলীয় ১২৫ রানে।

সেখান থেকে মোহাম্মদ হাফিজ আর ওমর গুল ফের আশা জাগান। কিন্তু দলীয় ১৪৪ রানে গুলের পর দলীয় ১৪৫ রানে সাঈদ আজমল ও জুনায়েদ খান ফিরে গেলে জয় পাকিস্তানের জন্য কঠিন হয়ে পড়ে।

তবে একপ্রান্তে থাকা মোহাম্মদ হাফিজ ইশান্ত শর্মার ৪৯তম ওভারে দ্বিতীয় ও তৃতীয় বলে পরপর দুটি চার মেরে ম্যাচকে কাছাকাছি নিয়ে আসেন। এরপর পঞ্চম বল নো করলে রানআউটের হাত থেকে মোহাম্মদ ইরফান রেহাই পেলেও পরের বলেই হাফিজ মিড-উইকেটে ইশান্তের বলে যুবরাজের তালুবন্দি হলে পাকিস্তান ১০ রানে হেরে যায়।

পাকিস্তানের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৯ রান করেছেন অধিনায়ক মিসবাহ। এছাড়া নাসির জামশেদ ৩৪, উমর আকমল ২৫ ও হাফিজ ২১ রান করে করেন। ভারতের পক্ষে ৩৬ রানে ৩ উইকেট নিয়ে সেরা ইশান্ত শর্মা। ভুবনেশ্বর কুমার ও রবিচন্দন অশ্বিন দুটি করে উইকেট পান।

এরআগে সাঈদ আজমলের ঘূঁর্ণিফাদে পড়ে ভারত মাত্র ১৬৭ রানে গুটিয়ে যায়। বিগত দুই ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও সমালোচিত অধিনায়ক ধোনি সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেন, যেটি শেষপর্যন্ত তাকে সিরিজে দুবার ম্যাচসেরার পুরস্কার এনে দেয়।

এছাড়া সুরেশ রায়না ৩১, জাদেজা ২৭ ও যুবরাজ ২৩ রান করে করেন। ২৪ রানে ৫ উইকেট নিয়ে সাঈদ আজমল একাই ভারতকে ধসিয়ে দেন। এছাড়া মোহাম্মদ ইরফান নেন ২ উইকেট। পুরো সিরিজে ব্যাটিংয়ে দুটি শতকের দ্যুতি ছড়ানো পাকিস্তানের নাসির জামশেদ হন সিরিজ সেরা।


খেলাধুলা এর অন্যান্য খবরসমূহ
জেলা এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ