শ্রীলংকার বিপক্ষে রানের পাহাড় গড়ল পাকিস্তান

সংযুক্ত আরব আমীরাতে অনুষ্ঠানরত পাঁচ ম্যাচ ওডিআই সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে পাকিস্তান রানের পাহাড় গড়েছে । শারজার ম্যাচে মোহাম্মদ হাফিজের অপরাজিত সেঞ্চুরি, আহমেদ শেহজাদের হাফ সেঞ্চুরি এবং ওমর আকমল ও অধিনায়ক মিসবাহ উল হকের ঝড়ো ইনিংসে ভর করে পাঁচ উইকেটের বিনিময়ে ৩২৬ রান করেছে পাকিস্তান। ফলে জয়ের জন্য শ্রীলংকার টার্গেট ৩২৭ রান।

টস জিতে শ্রীলংকান অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ প্রতিপক্ষকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানিয়ে শুরুতেই সাফল্যের দেখা পান। দলীয় এবং ব্যক্তিগত দুই রানের মাথায় বোল্ড হয়ে দর্শক বনে যান পাকিস্তানি ওপেনার শারজিল খান। কিন্তু ওয়ানডাউনে নামা প্রথম ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান মোহাম্মদ হাফিজ এবং দ্বিতীয় ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান আহমেদ শেহজাদ দ্বিতীয় উইকেটে গড়েন ১৬০ রানের বড় জুটি। দ্বিতীয় ম্যাচে শেহজাদের সেঞ্চুরিটা ঢাকা পড়েছিল লংকা দলপতি অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজের ঝড়ো ইনিংসের কাছে। শেহজাদ তৃতীয় ম্যাচেও সেঞ্চুরির পথেই ছিলেন। কিন্তু অযথাই একটি রান নিতে গিয়ে মালিংগার থ্রোয়ে রান আউট হয়ে ফিরে আসলে তাকে থামতে হয় ৮১ রানে।

কিন্তু বেশ কিছুদিন পর রানে ফেরা মোহাম্মদ হাফিজ দলের স্কোরবোর্ড চালু রাখেন। তাকে সঙ্গ দিতে নেমে শোয়েব মাকসুদ ২১ রানে থিসারা পেরেরার বলে সেনানায়েকের হাতে ক্যাচ দেয়ার সময়টাতে পাকিস্তানের স্কোরবোর্ডে কাঁটায় কাঁটায় ২০০ রান।

অধিনায়ক মিসবাহ উল হক পঞ্চম উইকেটে ৭৫ রানের ভাগিদারী গড়েন হাফিজের সাথে। পেরেরার বলে সেনানায়েকের হাতে ক্যাচ দেয়ার সময়টাতে মিসবাহ’র নামের পাশে ২৬ বলে তিন বাউন্ডারি এবং দুই ছক্কায়  ৪০ রান।  গত ম্যাচে ঝড়ো ইনিংস খেলা শহিদ আফ্রিদি মাত্র দুই রানে মালিঙ্গার বলে বোল্ড হলেও হাফিজ ছিলেন অবিচল। তিনি শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়ার সময়টাতে তার নামের পাশে ১৪০ রান। ১৩৬ বলের মোকাবেলা করার পথে  ১১টি  বাউন্ডারি আর তিনটি  ছক্কা হাঁকান হাফিজ। তার সাথে আরেক অপরাজিত ব্যাটসম্যান ওমর আকমল ছিলেন শ্রীলংকান বোলারদের ওপর নির্দয়। ১৯.৬৬ স্ট্রাইক রেটে মাত্র ১২ বলে দুই ছক্কা এবং এক বাউন্ডারিতে তিনি খেলেন ২৬ রানের অপরাজিত ইনিংস।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।