বুয়েট ভিসির অপসারণের আগে ক্লাসে ফিরছে না শিক্ষার্থীরা। - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

বুয়েট ভিসির অপসারণের আগে ক্লাসে ফিরছে না শিক্ষার্থীরা।



(খবর তরঙ্গ ডটকম)

যে ভিসি আমাদের রক্ত দেখেও আমাদের প্রতি বিন্দুমাত্র সহানুভূতি দেখাননি, সেই ভিসির প্রতি আমাদের আস্থা নেই, দুর্নীতি, অনিয়মের আর স্বেচ্চাচারিতার অভিযোগ এনে টানা ৪ মাস আন্দোলন অব্যাহত রাখার পর প্রো-ভিসিকে অপসারণের সরকারি সিদ্ধান্তকে প্রত্যাখ্যান করেছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। একই সাথে তারা ভিসিরও অপসারণ দাবি করছেন। আর এ সকল দাবিতে এখনো অনড় রয়েছেন তারা। শিক্ষার্থীরা জানান, দুর্নীতির বিরুদ্ধে তাদের আন্দোলন চলবেই। কোন দলীয়করণ আর অনিয়ম বুয়েটে চলতে দেয়া হবে না। ভিসির অপসারণের আগে ক্লাসে ফিরছে না বলেও তারা জানান।গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে বুয়েট মিলনায়তনে সাংবাদিক সম্মেলন করে এসকল সিদ্ধান্তের কথা জানান আন্দোলনকারীরা। সাংবাদিক সম্মেলনে তারা শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সাথে আলোচনায় বসার আশা ব্যক্ত করেন। এ সময় লিখিত বক্তব্যে ৭ম ব্যাচের শিক্ষার্থী মেরিনা জাহান বলেন, ‘‘যে ভিসি আমাদের রক্ত দেখেও আমাদের প্রতি বিন্দুমাত্র সহানুভূতি দেখাননি, সেই ভিসির প্রতি আমাদের আস্থা নেই। যে ভিসি শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে চুরি ও ভাঙচুরের মিথ্যা মামলা দেন, এই অবস্থায় আমরা কী করে তাকে বিশ্বাস করি। এমতাবস্থায় তাই শ্রদ্ধেয় ভিসি স্যারকে পদত্যাগের আহবান জানাচ্ছি।’’ তিনি আরো বলেন, ‘‘শিক্ষা সচিব আগামীকাল (আজ বুধবার) বুয়েটের শিক্ষার্থীদের সাথে আলোচনায় বসতে পারেন। এছাড়া আমরা শিক্ষামন্ত্রীকেও আমাদের সাথে আলোচনায় বসতে বলছি। তারা এখানে এসে পরিবেশ-পরিস্থিতি বুঝে যেন ব্যবস্থা নেন। সাংবাদিক সম্মেলনে শিক্ষার্থীরা আরো বলেন, আন্দোলনে সক্রিয় অংশগ্রহণকারী হিসেবে শিক্ষার্থীদেরও নিজস্ব ভাবনা রয়েছে। রয়েছে নিজেদের যুক্তিসংগত ভাবনাগুলো তুলে ধরার চেতনা। তাই অভিভাবক হিসেবে শিক্ষামন্ত্রীর কাছে তাদের কথাগুলো তুলে ধরতে চান। এ সময় শত শত শিক্ষার্থী ভিসি ও প্রো-ভিসিকে না সরানো পর্যন্ত ক্লাসে যাবেন না বলে চিৎকার করে জানাতে থাকেন।

এর আগে সকাল ১০টায় তারা শিক্ষকদের সাথে আলোচনায় বসে। টানা ৪ ঘণ্টার আলোচনা শেষে তারা তাদের সিদ্ধান্তের কথা সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে জানায়। এ সময় শিক্ষার্থী সুদীপ্ত সাহা বলেন, কেবলমাত্র প্রো-ভিসিকে অপসারণের সরকারি সিদ্ধান্তকে আমরা প্রত্যাহার করছি। প্রো-ভিসির সাথে ভিসিকেও অপসারণ করতে হবে। অন্যথায় তাদের আন্দোলন চলতে থাকবে। এ ব্যাপারে কোন আপোষ করা হবে না।

গত সোমবার মধ্যরাতে প্রযুক্তি ও প্রকৌশল বিষয়ক শিক্ষার সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ হিসেবে খ্যাত বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় বুয়েটের প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. হাবিবুর রহমানেরকে প্রত্যাহার করে নেবার ঘোষণা দেয় সরকার। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ জানান, বুয়েটে চলমান সংকট নিরসনে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষক সমিতির সাথে সোমবার গভীর রাত পর্যন্ত বৈঠকের পর সরকারের তরফ থেকে প্রো-ভিসিকে সরিয়ে নেবার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সেই সাথে আন্দোলনকারী ছাত্র-শিক্ষকদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলাগুলোও প্রত্যাহার করার ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। শিক্ষামন্ত্রীর মিন্টো রোডের সরকারি বাসভবনে অনুষ্ঠিত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এ কে আজাদ চৌধুরী, শিক্ষা সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, বুয়েট শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মুজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আশরাফুল ইসলাম, সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. জয়নুল আবেদীন, সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. মাকসুদ হেলালীসহ শিক্ষক সমিতির ১০ সদস্য।

দু’ঘণ্টার বৈঠক শেষে বেরিয়ে এসে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ছাত্র-শিক্ষকদের দাবি, শিক্ষার্থীদের স্বার্থ এবং দেশবাসীর উদ্বেগ ইত্যাদি বিষয়গুলোকে বিবেচনায় নিয়ে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে ভিসিকে প্রত্যাহারের যে দাবিটি রয়েছে সেটি নিয়ে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান তিনি। তবে সরকারি সিদ্ধান্তে শিক্ষক নেতারা আশ্বস্ত হলেও আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা এ সিদ্ধান্ত মানছেন না। তারা বলছেন, এই মুহূর্তে ভিসিকেও সরাতে হবে। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বলছেন, বর্তমান ভিসির অধীনে তারা নিরাপদ নন। তাই শিক্ষার্থীরা সরকারের এ সিদ্ধান্তের ব্যাপারে তাদের আপত্তির কথা শিক্ষকদের জানান। বুয়েট শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মজিবুর রহমান বলেন, শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষাসচিব আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সাথে আলোচনায় বসবেন। তবে স্থান এখনো ঠিক হয়নি। দুপুরের আগে তারা কোথায় বসবেন তা জানাবেন।

এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বুয়েট ভিসি ও প্রো-ভিসিকে অপসারণের দাবিতে মানববন্ধন করেছে ঢাবি শিক্ষকরা। দুপুর ১২টায় অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সচেতন শিক্ষকদের ব্যানারে বিএনপি ও জামায়ত সমর্থিক শিক্ষকরা এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।

মামলা প্রত্যাহারের নির্দেশ

বুয়েটে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা দুটি প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছেন ভিসি অধ্যাপক ড. এসএম নজরুল ইসলাম। ভিসি ও প্রো-ভিসির কক্ষে হামলা, ভাংচুর ও চুরির অভিযোগ এনে গত রোববার রাতে রাজধানীর শাহবাগ থানায় মামলা দুটি দায়ের করে বুয়েট কর্তৃপক্ষ। ভিসি জানিয়েছেন বুয়েটের শিক্ষক সমিতি ও শিক্ষামন্ত্রীর বৈঠকের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে মামলা তুলে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি।

উল্লেখ্য, রোববার রাতে বুয়েটের সহকারী রেজিস্ট্রার (নিরাপত্তা) গোলাম কুদ্দুস খান বাদী হয়ে ওই মামলা দুটি দায়ের করেন, যাতে মোট ৪৯ জন শিক্ষক-ছাত্রের নাম উল্লেখ করে প্রায় একশ জনকে আসামি করা হয়। ছাত্রলীগ কর্মীরা ভিসি ও প্রো-ভিসির কার্যালয়ে হামলা, ভাংচুর করলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীসহ এ মামলায় প্রায় একশজনকে আসামী করা হয়।


পূর্বের সংবাদ
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০