ভোটের আগে ২০ জেলায় ১০০টিরও বেশী ভোট কেন্দ্রে আগুন

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগের দিন কমপক্ষে ২০টি জেলায় ভোটকেন্দ্র হিসেবে নির্ধারিত ১০০টিরও বেশী স্কুলে আগুন দেয়া হয়েছে।

রোববারের এই বিতর্কিত নির্বাচনের আগে কয়েকদিন ধরেই বিভিন্নস্থানে ভোটকেন্দ্রগুলোকে লক্ষ্য করে হামলা হচ্ছে। শুক্রবার রাতে লক্ষীপুর, রাজশাহী, কুষ্টিয়া, ফরিদপুর, সিলেট, নীলফামারী, ফেনী ও গাইবান্ধা সহ বিভিন্ন জেলায় ভোটকেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার হবার কথা এমন স্কুলের আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটে।

রাজশাহীর চারঘাট থানার ওসি গোলাম মোর্তজা বিবিসিকে বলেছেন, তার থানায় তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আগুন দেয়া হয়েছে – যার মধ্যে দুটি ভোটকেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার হবার কথা। তিনি বলেন, “আগুনে কিছু ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, তবে ভোটকেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারে কোন সমস্যা হবে না।”

লক্ষীপুরের জেলা প্রশাসক মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, তার জেলায় কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে আগুন দেয়া হয়েছে তবে কেন্দ্র পরিবর্তন করার দরকার হবে না। এ ঘটনার পর জেলায় নিরাপত্তা আরো জোরদার করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

অবরোধ চলাকালে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষিপ্ত সহিংস ঘটনার পাশাপাশি ফেনী জেলার ছয়টি ভোটকেন্দ্রসহ বিভিন্ন স্থানে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দিন আহমেদ ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে কোন সংখ্যা উল্লেখ না করে বলেছেন, কিছু ভোট কেন্ত্রে আগুন লাগানোর খবর তারা পেয়েছেন, তবে বেশির ভাগই মেরামত করা হচ্ছে এবং সেখানে ভোটগ্রহণ করা যাবে।

শেষ মুহুর্তে হয়তো দু একটি কেন্দ্র পরিবর্তন করে কাছাকাছি অন্য কোথাও নিয়ে যেতে হতে পারে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।