হত্যা, গুম ও আটক অবস্থায় গুলি করার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জামায়াতের

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দেশব্যাপী হত্যা, গুম ও আটক অবস্থায় গুলি করার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে দলের ভারপ্রপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান এই নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

তিনি অভিযোগ করেন, ‘সরকার আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে মানুষের বুকে গুলি চালাতে বাধ্য করছে। পুলিশ জামায়াত ও ছাত্রশিবিরের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করে প্রতিনিয়ত হত্যার উদ্দেশে গুলি করছে। প্রতিদিনই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটছে।’

ডা. শফিকুর রহমান প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘যাকে গ্রেপ্তার করা হলো তাকে গুলি করা হচ্ছে কেন? পুলিশ হেফাজতে থাকা অবস্থায় গুলি করার এই নাটক জনজীবনকে বিপর্যস্ত করে তুলেছে।’

তিনি বলেন, ‘সরকারের নির্দেশে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর গ্রেপ্তার নাটকের পর গুলি করে আহত করার ধারাবাহিক নিষ্ঠুরতার শিকার সাতক্ষীরার জামায়াত কর্মী ফারুক হোসেন।’

জামায়াত সেক্রেটারি বলেন, ‘জামায়াত ও ছাত্রশিবিরের কর্মীদেরকে গ্রেপ্তার করে গভীর রাতে হাত-পা বেঁধে গুলি করা বর্তমান সরকারের রুটিন-ওয়ার্কে পরিণত হয়েছে। গুলির পর নাটক তৈরি করে প্রচার করে জনগণের সঙ্গে তামাশা করা হচ্ছে।’

তিনি বলেন, সাতক্ষীরা, নারায়ণগঞ্জ, বগুড়া, ঝিনাইদহ ও জয়পুরহাট আজ রক্তাক্ত বিরানভূমিতে পরিণত হয়েছে। রাষ্ট্রের দায়িত্ব জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। সরকার সে দায়িত্ব পালনের পরিবর্তে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে গুলি করে মানুষ খুন করতে বাধ্য করছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, দেশের বিভিন্ন এলাকায় হত্যা-গুমের পাশাপাশি চলছে গণগ্রেপ্তার। আজ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় ৫৩জন, ঝিনাইদহে ৩৩ জন এবং কুষ্টিয়ায় তিনজনসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে জামায়াত ও ছাত্রশিবিরের শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।