মেঘনা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চের উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত, ৫০ লাশ উদ্ধার, বিক্ষোভ

কালবৈশাখী ঝড়ে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় মেঘনা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চের উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।নিখোঁজ যাত্রীদের শত শত স্বজন এখনো নদীর তীরে অপেক্ষা করছেন। উদ্ধার তত্পরতায় ধীরগতির অভিযোগে তারা বিক্ষোভ করছেন।

 

শনিবার সকাল ৮টা ৩৫ মিনিটের দিকে উদ্ধার অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান ড. শামসুদ্দোহা খন্দকার।

এর আগে ডুবে যাওয়া লঞ্চ এমভি মিরাজ-৪ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করার আগে সকালে আরো তিনটি লাশ উদ্ধার করা হয়। এনিয়ে লাশের সংখ্যা দাঁড়াল ৫০।

 

বৃহস্পতিবার বিকালে ৩০০ যাত্রী নিয়ে লঞ্চটি ডুবে যায়। ডুবে যাওয়ার পরপরই ৫০-৬০ যাত্রী সাঁতরে তীরে এসেছেন। এখনো শতাধিক যাত্রী নিখোঁজ রয়েছেন।

 

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান মো. শাসছুদ্দোহা খন্দকার জানান, উদ্ধার কাজ সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। ৪০ লাশ উদ্ধার সম্ভব হয়েছে। বাকিরা নিখোঁজ।

 

বৃহস্পতিবার বেলা দুইটার দিকে রাজধানীর সদরঘাট থেকে এমভি মিরাজ-৪ নামে লঞ্চটি শরীয়তপুরের সুরেশ্বরের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। বেলা সাড়ে তিনটার দিকে গজারিয়ার ইমামপুর ইউনিয়নের দৌলতপুর কালিপুরা এলাকায় পৌঁছালে লঞ্চটি ঝড়ের কবলে পড়ে ডুবে যায়। উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় ও দুর্বার ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধারে অভিযান চালায়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।