সাংসদ নিজাম হাজারী- জয়নাল হাজারীর দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

ফেনীর সাবেক সংসদ সদস্য জয়নাল হাজারী ও বর্তমান সাংসদ ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী এম.পি’র দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। পুলিশ মৌখিকভাবে ইমিগ্রেশন ও সীমন্তবর্তী এলাকায় দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের এ নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি অবগত করেছেন।
ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি একরাম হত্যার ঘটনায় নিজাম হাজারীর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ ওঠায় পুলিশ এই উদ্যোগ নিয়েছে। নিজাম হাজারীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদনও করা হয়েছে। তার পাশাপাশি ফেনী আওয়ামী লীগের আরেক আলোচিত ব্যক্তি জয়নাল হাজারীকেও যেকোনো সময় জিজ্ঞাসাবাদ করবে পুলিশ। তিনিও যাতে দেশত্যাগ করতে না পারেন সে জন্য সংশ্লিষ্ট সব জায়গায় দিকনির্দেশনা দিয়ে রেখেছে পুলিশ।
একরাম কিলিং মিশনে অংশ নেওয়া ২৪ জনকে গ্রেপ্তার করলেও বাকিরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাওয়ায় সমালোচনার ঝড় বইছে ফেনীসহ সারা দেশে। আদৌ তারা গ্রেপ্তার হবেন কিনা তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করছেন নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী।
নিজাম হাজারীকে গ্রেপ্তার করতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ থেকে জোর দাবি ওঠায় টনক নড়েছে সরকারের ওপর মহলের।

এছাড়া হত্যার পরিকল্পনাকারী বলে সন্দেহভাজন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির আদেল ও যুবলীগ নেতা জিয়াউল আলম মিস্টার গ্রেপ্তার না হওয়ায় নানা প্রশ্ন উঠেছে। অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় এমপি ও পুলিশের সহায়তায় এই দুজনকে দেশের বাইরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

 

পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি নওশের আলী বলেন, একরামের খুনি ও পরিকল্পনাকারীদের ধরতে নিরলসভাবে কাজ করছে পুলিশ। পাশাপাশি র‌্যাব, বিজিবি ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলোও কাজ করছে। স্থানীয় এমপি নিজাম হাজারীসহ আরো কয়েকজন যাতে দেশের বাইরে না যেতে পারেন সে জন্য মৌখিকভাবে বিমানবন্দর ও সীমান্তে দায়িত্বরত কর্তৃপকে অবগত করা হয়েছে। নির্দেশ এলে তাকেসহ অন্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

আরো জানা যায়, নিজাম হাজারীর বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ উঠছে সেগুলো সঠিক তদন্ত করে সত্যতা পাওয়া যাচ্ছে। রিমান্ডে থাকা আসামিরাও তার সম্পর্কে তথ্য দিচ্ছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।