দিগন্ত মিডিয়ার করপোরেশনের চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা মীর কাশেমের রায় রবিবার

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আটক জামায়াতের কর্মপরিষদের সদস্য ও দিগন্ত মিডিয়ার করপোরেশনের চেয়ারম্যান মীর কাশেম আলীর রায় রবিবার ঘোষণা করা হবে। বৃহস্পতিবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে গঠিত তিন সদস্যের দ্বিতীয়  আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল এ দিন ঘোষণা করে।

 

এর আগে গত ৪ মে আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রায়ের জন্য মামলাটি অপেক্ষমাণ রাখেন (সিএভি)। যুক্তি উপস্থাপন শেষে প্রসিকিউশন দাবি করেছেন, তারা মীর কাশেম আলীর অপরাধ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছেন। এজন্য তার সর্বোচ্চ শাস্তি হবে। আসামিপক্ষের দাবি, মীর কাশেম আলীর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। প্রসিকিউশন তাদের অভিযোগ প্রমাণে ব্যর্থ হয়েছে। তারা আশা করছেন তিনি খালাস পাবেন।

 

গত বছরের ১৮ নভেম্বর মীর কাশেম আলীর বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের ওপেনিং স্টেটমেন্ট উপস্থাপনের মধ্যদিয়ে বিচারকাজ শুরু হয়। এরপর ১১ ডিসেম্বর তার বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়।

 

২০১৩ সালের ১৬ মে প্রসিকিউটর জেয়াদ আল মালুমসহ প্রসিকিউশন টিম ১৪টি অভিযোগে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রার বরাবর দাখিল করেন। গত ৫ সেপ্টেম্বর মীর কাসেম আলীকে ১৪টি ঘটনায় অভিযুক্ত করে অভিযোগ গঠন করে ট্রাইব্যুনাল। মীর কাশেম আলীর বিরুদ্ধে আনিত ১৪টি অভিযোগের মধ্যে ১১ ও ১২ নাম্বার অভিযোগ ছাড়া বাকি সব অভিযোগই অপহরণ করে নির্যাতনের বর্ণনা রয়েছে।

 

২০১২ সালের ১৭ জুন মীর কাশেম আলীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করলে ওইদিন বিকেলে মতিঝিলে দৈনিক নয়া দিগন্ত কার্যালয়ের (দিগন্ত মিডিয়া করপোরেশন) থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।