ড্যান্ডি ডাইং এর মামলায় আইনজীবীর মাধ্যমে খালেদার হাজিরা

৪৫ কোটি টাকা ঋণখেলাপির মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ চারজনকে আইনজীবীর মাধ্যমে আদালতে হাজিরা দিতে বলা হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকার প্রথম অর্থঋণ আদালতের বিচারক ফাতেমা ফেরদৌস এ আদেশ দেন। আগামী ১২ এপ্রিল এ মামলার শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

 

এর আগে রবিবার সোনালী ব্যাংকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে খালেদা জিয়ার ঠিকানায় সমন পাঠানো হয়। ড্যান্ডি ডাইংয়ের ৪৫ কোটি ৪৯ লাখ টাকা খেলাপি ঋণের মামলায় প্রধান আসামি ছিলেন আরাফাত রহমান কোকো। তিনি ড্যান্ডি ডাইং লিমিটেডের পরিচালক ছিলেন। গত ২৪ জানুয়ারি কোকো মালয়েশিয়ায় মারা যান।

 

তিনি মারা যাওয়ায় তার উত্তরাধিকারী হিসেবে ১৬ মার্চ খালেদা জিয়া, কোকোর স্ত্রী শার্মিলা রহমান ও তার দুই মেয়ে জাহিয়া রহমান ও জাফিয়া রহমানকে বিবাদী করা হয়। চূড়ান্ত নোটিশ পাঠানোর পরও ঋণের অর্থ ফেরত না পাওয়ায় ৮ মার্চ সোনালী ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ নির্বাহী নজরুল ইসলাম আদালতে আবেদন করেন।

 

২০১৩ সালের ২ অক্টোবর ঋণখেলাপির অভিযোগে মামলাটি দায়ের করেন সোনালী ব্যাংকের স্থানীয় কার্যালয়ের নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম। মামলার অন্য বিবাদীরা হলেন খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান, প্রয়াত সাঈদ এস্কান্দারের স্ত্রী নাসরিন আহমেদ, ছেলে শামস এস্কান্দার, সাফিন এস্কান্দার, মেয়ে সুমাইয়া এস্কান্দার, তারেক রহমানের বন্ধু গিয়াস উদ্দিন আল মামুন, তার স্ত্রী শাহিনা বেগম ও কাজী গালিব আহমেদ। এছাড়া আসামির তালিকায় ড্যান্ডি ডাইং লিমিটেডের নামও রয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।