বাংলাদেশ ক্রমে ভয়ংকর হয়ে উঠছে

ঢাকায় দুই প্রকাশকের ওপর হামলার ‘পুঙ্খানুপুঙ্খ, কার্যকর, যথাযথ ও স্বাধীন’ তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে লন্ডনভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

 

শনিবার রাজধানীর লালমাটিয়ায় নিজ কার্যালয়ে কুপিয়ে ও গুলি করে অভিজিৎ রায়ের প্রকাশনা সংস্থা শুদ্ধস্বরের আহমেদুর রশীদ টুটুলসহ তিনজনকে আহত করে দুর্বৃত্তরা।

 

পরে আরেক প্রকাশনা সংস্থা জাগৃতির ফয়সল আরেফিন দীপনকে আজিজ সুপার মার্কেটের কার্যালয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। দুটি প্রকাশনী থেকেই ব্লগার অভিজিৎ রায়ের বই প্রকাশিত হয়েছিল।

 

শনিবার এক বিবৃতিতে সংস্থাটি বলেছে, প্রয়াত ব্লগার অভিজিৎ রায়ের দুই প্রকাশক ও তাদের সহকর্মীদের ওপর নির্মম হামলার ঘটনায় যারা দেশে বাকস্বাধীনতার চর্চা করছে, তাদের ওপর ভয়ংকর ধাঁচের সহিংসতার আরো প্রমাণ আজ মিলল।

 

সংস্থাটির বাংলাদেশবিষয়ক গবেষক আব্বাস ফয়েজ বলেন, ‘বাংলাদেশের স্বাধীন কণ্ঠগুলোর ওপর আরো হামলার ঘটনায় আমরা অত্যন্ত মর্মাহত।’ তিনি বলেন, ‘নিজের মতো করে যারা কথা বলার সাহস রাখে, তাদের জন্য বাংলাদেশ ক্রমে ভয়ংকর হয়ে উঠছে।’

 

তিনি বলেন, ‘সহিংসতার আতঙ্কজনক ধাঁচ থেকে আমাদের বিশ্বাস করার যুক্তি আছে, আরো অনেক জীবন ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। দেশে এ রকম ভয়াবহ ও লক্ষ্যস্থির করে সহিংসতা থেকে অন্যদের সুরক্ষা দিতে আমরা বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের প্রতি জরুরি ভিত্তিতে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’

 

মানবাধিকার সংগঠনটি আরো জানায়, ‘হামলাকারীদের খুঁজে বের করা ও তাদের বিচারের আওতায় আনতে সম্ভাব্য সব পদক্ষেপ নেওয়ার দায়িত্ব সরকারের। একটি পুঙ্খানুপুঙ্খ, কার্যকর, যথাযথ ও স্বাধীন তদন্তের মাধ্যমে এটা সম্ভব।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।