রায়পুরে ৫ দিনে ১০ চুরি : চোর ধরতে পাহাড়ায় যুবকরা ! - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

রায়পুরে ৫ দিনে ১০ চুরি : চোর ধরতে পাহাড়ায় যুবকরা !



রায়পুরে ৫ দিনে ১০ চুরি : চোর ধরতে পাহাড়ায় যুবকরা ! রাযপুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি: করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউন পরিস্থিতির মধ্যে গত ৫ দিনে চুরির ঘটনা ঘটেছে ১০টি।। তবে এসব অপরাধের প্রকৃত সংখ্যা আরও অনেক বেশি বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। এসব অপরাধের সঙ্গে রয়েছে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে কিশোর গ্যাং পার্টির দৌরাত্ম্য। রাযপুর পৌরসভা এলাকায় বিশেষ করে টিএনটি সড়কের ভিতরে বকসি বাড়ীর আশপাশের কয়েকটি বাড়ীর সিঁধেল ও দরজা ভেঙ্গে চুরি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা বেশি ঘটছে বলে জানিয়েছেন দায়িত্বশীলরা। এসব অপরাধ বেড়ে যাওয়ার পেছনে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর কম নজরদারিকে দায়ী করছেন ভুক্তভোগীরা। তবে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর দায়িত্বশীলরা বলছেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে সামনের সারিতে থেকে কাজ করছে পুলিশ ও অন্যান্য বাহিনী। লকডাউন থাকা বিভিন্ন এলাকায় দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি নিয়মিত টহল দেওয়া হচ্ছে। তারপরও যেসব ঘটনা ঘটছে তা দ্রুত সময়ের মধ্যে তদন্ত করে জড়িতদের গ্রেফতার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে রায়পুর থানা পুলিশ । রোববার পৌরসভার পশ্চিম কাঞ্চনপুর গ্রামের-চাকলাদার নতুর বাড়ীর প্রবাসী মুরাদ হোসেন রানার ঘরের সিঁধেল কেটে তার ভাগিনা কলেজ ছাত্র কামরুল হাসানের মোবাইল ও মানিব্যাগ, একই রাতে জানালা দিয়ে নতুন বকসী বাড়ীর ব্যবসায়ী মোক্তার হোসেনের বোনের গলা থেকে চেইন, চাকুরীজিবী যুবক পিয়াসের মামানির গলার চেইন, ব্যবসায়ী রোকনের ভাবির মোবাইল ও গলার চেইন,মাইক্রো চালক সিরাজ'র স্ত্রীর চেইন, বুধবার সন্ধায় (১২ আগষ্ট) লন্ডন প্রবাসী শামিমের নানুর অনুপুস্থিতিতে তার ঘরের দরজা ভেঙ্গে নগদ ১৫'শ টাকা ও মোবাইল এবং গত ফেব্রুয়ারী মাসে সাংবাদিক আজাদ ও তার ভাই'র ঘর থেকে দুটি মোবাইল নিয়ে যায় চোর । চুরি ও ছিনতাই বা সিধেঁল চুরির মতো ঘটনা সংশ্লিষ্ট থানা পর্যন্ত যায় না। একাধিক বাড়িতে চোরেরা সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে চুরি করেছে। নিয়ে গেছে, মোবাইল ফোন, নগদ টাকাসহ অন্যান্য মুল্যবান জিনিস। রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল জলিল বলেন চুরির ঘটনায় কয়েকজন অভিযোগ করেছেন। তদন্ত করা হচ্ছে। এই চক্রকে গ্রেফতারে কাজ করছি। ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা ঠেকাতে টহল জোরদার করা হয়েছে। লকডাউন পরিস্থিতিতে স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় সেসব প্রতিষ্ঠানেও চুরির ঘটনা ঘটছে। গত জুন মাসের মাঝামাঝিতে ২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও একটি জানালার গ্রিল কেটে ৫টি ল্যাপটপসহ অন্যান্য জিনিস চুরির ঘটনা ঘটেছে। এখনও কাউকে গ্রেফতার বা ল্যাপটপগুলো উদ্ধারের কোনও খবর জানায়নি পুলিশ। তাবারক হোসেন আজাদ, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউন পরিস্থিতির মধ্যে গত ৫ দিনে চুরির ঘটনা ঘটেছে ১০টি।। তবে এসব অপরাধের প্রকৃত সংখ্যা আরও অনেক বেশি বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। এসব অপরাধের সঙ্গে রয়েছে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে কিশোর গ্যাং পার্টির দৌরাত্ম্য।


রাযপুর পৌরসভা এলাকায় বিশেষ করে টিএনটি সড়কের ভিতরে বকসি বাড়ীর আশপাশের কয়েকটি বাড়ীর সিঁধেল ও দরজা ভেঙ্গে চুরি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা বেশি ঘটছে বলে জানিয়েছেন  দায়িত্বশীলরা। এসব অপরাধ বেড়ে যাওয়ার পেছনে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর কম নজরদারিকে দায়ী করছেন ভুক্তভোগীরা। 


তবে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর দায়িত্বশীলরা বলছেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে সামনের সারিতে থেকে কাজ করছে পুলিশ ও অন্যান্য বাহিনী। লকডাউন থাকা বিভিন্ন এলাকায় দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি নিয়মিত টহল দেওয়া হচ্ছে। তারপরও যেসব ঘটনা ঘটছে তা দ্রুত সময়ের মধ্যে তদন্ত করে জড়িতদের গ্রেফতার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে রায়পুর থানা পুলিশ ।


রোববার পৌরসভার পশ্চিম কাঞ্চনপুর গ্রামের-চাকলাদার নতুর বাড়ীর প্রবাসী মুরাদ হোসেন রানার ঘরের সিঁধেল কেটে তার ভাগিনা কলেজ ছাত্র কামরুল হাসানের মোবাইল ও মানিব্যাগ, একই রাতে জানালা দিয়ে নতুন বকসী বাড়ীর ব্যবসায়ী মোক্তার হোসেনের বোনের গলা থেকে চেইন, চাকুরীজিবী যুবক পিয়াসের মামানির গলার চেইন, ব্যবসায়ী রোকনের ভাবির মোবাইল ও গলার চেইন,মাইক্রো চালক সিরাজ’র স্ত্রীর চেইন, বুধবার সন্ধায় (১২ আগষ্ট) লন্ডন প্রবাসী শামিমের নানুর অনুপুস্থিতিতে তার ঘরের দরজা ভেঙ্গে নগদ ১৫’শ টাকা ও মোবাইল এবং গত ফেব্রুয়ারী মাসে সাংবাদিক আজাদ ও তার ভাই’র ঘর থেকে দুটি মোবাইল নিয়ে যায় চোর । চুরি ও ছিনতাই বা সিধেঁল চুরির মতো  ঘটনা সংশ্লিষ্ট থানা পর্যন্ত যায় না। একাধিক বাড়িতে চোরেরা সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে চুরি করেছে। নিয়ে গেছে, মোবাইল ফোন, নগদ টাকাসহ অন্যান্য মুল্যবান জিনিস।

রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল জলিল বলেন চুরির ঘটনায় কয়েকজন অভিযোগ করেছেন। তদন্ত করা হচ্ছে। এই চক্রকে গ্রেফতারে কাজ করছি। ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা ঠেকাতে টহল জোরদার করা হয়েছে।


লকডাউন পরিস্থিতিতে স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় সেসব প্রতিষ্ঠানেও চুরির ঘটনা ঘটছে। গত জুন মাসের মাঝামাঝিতে ২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও একটি জানালার গ্রিল কেটে ৫টি ল্যাপটপসহ অন্যান্য জিনিস চুরির ঘটনা ঘটেছে। এখনও কাউকে গ্রেফতার বা ল্যাপটপগুলো উদ্ধারের কোনও খবর জানায়নি পুলিশ।


পূর্বের সংবাদ