চুয়াডাঙ্গায় এক নারীর বস্তাবন্দী গলিত লাশ উদ্ধার

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার জোড়াগাছা গ্রামের একটি সেপটিক ট্যাংকের ভেতর থেকে এক নারীর বস্তাবন্দী গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহত নারী মাহেরন নেছা (৪০) গত দু’দিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন, তিনি উপজেলার জেহাল ইউনিয়নের রোয়াকুলি গ্রামের মওলা বক্স মিয়ার মেয়ে। নিহতের স্বামী সন্দেহভাজন ঘাতক আমিরুল ইসলাম পলাতক রয়েছেন।

বুধবার রাত ৯টার দিকে লাশ থেকে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দিলে রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশটি উদ্ধার করে। বৃহস্পতিবার সকালে লাশটি চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, মাহেরন নেছার সঙ্গে আমিরুল ইসলামের ১৯ বছর আগে বিয়ে হয়।

বুধবার রাতে মাহেরন নেছার লাশ উদ্ধারের পর জানা যায়, মাহেরনের স্বামী আমিরুল একাধিক এনজিও থেকে স্ত্রীর নামে ঋণ নেয়ার পরে তা পরিশোধ করতে পারছিলেন না। গত সোমবার রাত থেকে স্ত্রী মাহেরন হঠাৎ নিখোঁজ হন এবং হঠাৎ গা ঢাকা দেন তার স্বামী আমিরুল ইসলাম। পুলিশের ধারণা, ঘাতক স্বামী আমিরুল ইসলাম তার স্ত্রীকে হত্যা করে লাশটি নিজেদের সেপটিক ট্যাংকের মধ্যে ফেলে পালিয়ে গেছেন।

লাশ উদ্ধার করার পর থেকে সন্দেহভাজন আমিরুলকে খুঁজছে পুলিশ এবং দাম্পত্য কলহের কারণে আমিরুল মাঝেমধ্যেই স্ত্রীর ওপর শারীরিক নির্যাতন চালাতেন বলেও জানান ওসি

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।