বরুড়ায় বৃদ্ধ মাকে মারধর ছেলেদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

বরুড়ায় বৃদ্ধ মাকে মারধর ছেলেদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ



মশিউর রহমান সেলিম, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

কুমিল্লা বরুড়ায় ছেলেদের বিরুদ্ধে মাকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার শীলমুড়ী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড বালুড়া গ্রামের মুন্সি বাড়ির আবদুল আউয়াল, জাফর, খোদেজা ও রনির বিরুদ্ধে এই অভিযোগ। নিজের নিরাপত্তা এবং ছেলে ও পুত্রবধুদের শাস্তি দাবি করে ৬জনের বিরুদ্ধে বরুড়া থানা গত ১০ সেপ্টেম্বর একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এ নিয়ে এলাকার সামাজিক ও রাজনৈতিক পরিমন্ডলে নানাহ বির্তক ঘিরে ঝড় বইছে।


অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, উপজেলার শীলমুড়ী ইউনিয়নের বালুড়া গ্রামে মৃত আবদুল্লার সম্পত্তি নিয়ে তার ছেলে ও পুত্র বধুরা মিলে গত ১০ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকালে বৃদ্ধ মা মনোয়ার বেগমের থাকার ঘর নির্মান নিয়ে তার বড় ছেলে আবদুল আউয়াল ও ছোট ছেলে জাফরের সাথে মায়ের বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে ২ ছেলে, পুত্রবধু ও নাতীরা মিলে মা মনোয়ারা (৭০) কে বেদম মারদর করে গুরুতর আহত করে। প্রাণ বাঁচাতে বৃদ্ধ মা অন্য একটা ঘরে আশ্রয় নেয় এবং তার আত্মচিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে মা মনোয়ারাকে উদ্ধার করে।


বৃদ্ধা মা মানোয়ারা বেগম অভিযোগ করে বলেন, আমার বড় ছেলে আবদুল আউয়াল ছোট ছেলে জাফর আহম্মদ, নাতিরা অত্যান্ত খারাপ প্রকৃতির, স্বামীর মৃত্যুর পর থেকে তারা আমাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন এবং আমার উপর জোর জুলুম করে আসছে। উক্ত বিষয়ে স্থানীয় ভাবে একাধিকবার শালিস বিচার বসলেও তাদেরকে শান্ত করতে পারেনি। এরই ধারাবাহিকতায় ১০ সেপ্টেম্বর সকালে আমার স্বামীর মালিকীয় জায়গায় নিজের জন্য বিল্ডিং নির্মান করতে রড,বালু এবং সিমেন্ট এনে শ্রমিক নিয়ে নির্মান কার্যক্রম শুরু করিলে ওই সব ছেলেরা বাধা প্রদান ও গালমন্দ করিলে শ্রমিকরা ভয়ে কাজ ছেড়ে চলে যায়। বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থলে গেলে ছেলে আবদুল আউয়াল, জাফর, পুত্রবধু ও নাতিদের সাথে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে এলোপাথাড়ি কিল, ঘুষি, লাথি মারিয়া আমাকে মারাত্মক আহত করে। আমার চিৎকারে আশে পাশের লোকজন আমাকে তাদের কবল থেকে রক্ষা করে। তারা আমাকে প্রকাশ্যে হত্যার হুমকিও দেয়। এ ঘটনায় ৬জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছি। এ ছাড়া আমার বড় ছেলে ছলচাতুরি করে যৌথ সংসারে নির্মান করা ভবনের একটি অংশ তার পিতার কাছ থেকে সূকৌশলে তার নামে লিখে নেয়।


এদিকে বদ্ধা মাকে শারিরিক নির্যাতন ঘিরে মা মনোয়ার বেগম বাদী হয়ে, ছেলের স্ত্রী-সন্তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে থানায় অভিযোগ করার পরদিন আরেকটি সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটায় বৃদ্ধার ছোট ছেলে জাফর আহমেদ। এ নিয়ে ভিকটিম জসিম উদ্দিন বাদী হয়ে অভিযুক্ত জাফরের বিরুদ্ধে থানায় আরেকটি অভিযোগ দায়ের করেন।

অপরদিকে বড় ছেলে আঃ আউয়াল ঘটনাটি ভিন্ন খাতে প্রভাবিত করতে ছলচাতুরীর আশ্রয় নিলেও তার ছোট ভাই জাফর ইতালী প্রবাসী। করোনার কারনে দেশে এসে বড় ভাইয়ের সাথে যোগ দিয়ে পারিবারিক সম্পত্তি ঘিরে বৃদ্ধার মায়ের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয় এবং বৃদ্ধা মাকে নির্যাতন ঘটনাটি ধামা চাপা দেয়ার জন্য নানাহ তদবিরে ব্যাস্ত। এলাকার মিডিয়া কর্মীদের উপরও নানা ভাবে প্রভাব বিস্তার সহ হুমকি থমকি দিয়ে বেড়াচ্ছে। তবে তাদের ছোট ভাই আলমগীর ও মেঝে ভাই আব রউফ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেছেন ভিন্ন কথা।

এ ব্যাপারে ওয়ার্ড মেম্বার সিরাজুল ইসলাম জানায়, ঐ বাড়ীর বৃদ্ধা মায়ের উপর সস্তানদের নির্যাতন ঘিরে আমরা অনেকটাই বিব্রত। আইন গত ব্যাপারে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হবে।


ঐ ইউপির চেয়ারম্যান ফারুক আহমেদ জানায়, ঘটনাটি বিভিন্ন মাধ্যমে শুনেছি তবে কোন পক্ষই এখনো কোন অভিযোগ নিয়ে আসেনি। আসলে তা খতিয়ে দেখবো।
এ বিষয়য়ে থানা পুলিশের একাধিক সুত্র জানায়, পৃথক-পৃথক ঘটনায় ২টি অভিযোগ হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।



উপজেলা এর অন্যান্য খবরসমূহ
কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
জেলা এর অন্যান্য খবরসমূহ
লাকসাম এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ