শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
spot_img
Homeরাজনীতিপ্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে নতুন খসড়া অনুমোদন

প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে নতুন খসড়া অনুমোদন

তিন বছরের কারাদণ্ডের সঙ্গে এক লাখ টাকা জরিমানার বিধান রেখে ‘পাট আইন ২০১৬’-এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এতে সভাপতিত্ব করেন।

 

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের বলেন, ‘পাট অধ্যাদেশ ১৯৬২ সালে জারি করা হয়। সর্বোচ্চ আদালতের রায় ও মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দু্টি সামরিক শাসনামলের জারিকৃত প্রয়োজনীয় অধ্যাদেশ বাংলায় অনুবাদ করে আইনে পরিণত করতে এ আইন উপস্থাপন করেছে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়।’

 

এরপর পাট মন্ত্রণালয় অধ্যাদেশটি ১৯৬৩, ১৯৭৪ এবং ১৯৮৩ সালে সংশোধন করে। নতুন আইন করতে যতদূর সম্ভব আগের আইনকে অনুসরণ করা হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

 

আইনে ৩২টি ধারা রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এর মধ্যে পাট ও পাটজাত পণ্য উৎপাদন, গবেষণা ও উদ্ধুদ্ধকরণে সরকারের ক্ষমতা, পাট ও পাটজাত পণ্যের ব্যবসায়ে সরকারের ক্ষমতা, লাইসেন্স প্রদান, মূল্য নির্ধারণ, উন্নয়ন ফি আরোপ, উন্নয়ন তহবিল গঠন, চুক্তি নিবন্ধন, পাটখড়ি হতে পণ্য উৎপাদন ও বিক্রয়, নিষিদ্ধকরণ ক্ষমতা, বিক্রয় নির্দেশনা প্রদান ক্ষমতা, তথ্যাদি তলবের ক্ষমতা, হিসাববহির্ভূত মজুদ আটক করার ক্ষমতা, মিথ্যা বিবৃতি বা আইন লঙ্ঘনের দণ্ড, দায়মুক্তি ও জরিমানা ইত্যাদি।’

 

দণ্ডের বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘এ আইন লঙ্ঘনে সর্বোচ্চ শাস্তি তিন বছরের কারাদণ্ড বা ১ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড।’

 

তিনি বলেন, ‘তিন বছরের কারাদণ্ডের কথা অধ্যাদেশেই রয়েছে। জরিমানার কথাও ছিল। তবে তার সীমা নির্দিষ্ট করা ছিল না। প্রস্তাবিত আইনে জরিমানা ২৫,০০০ টাকা ছিল। এ অর্থ খুবই অপ্রতুল জানিয়ে মন্ত্রিসভা তা ১ লাখ করার জন্য বলেছে।’

 

এর আগে গত বছরের ২২ জুন পাট আইন নীতিগত অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। তখন জানানো হয়েছিল, আইনে নতুন সংযোজন হিসেবে ‘পাটখড়ি’র কথা বলা হয়েছে। পাটখড়ি থেকে বাণিজ্যিক উদ্দেশ্য উৎপাদিত পণ্য ক্রয় বিক্রয়ে তথ্য সংগ্রহ ও নিয়ন্ত্রণের বিধান রাখা হয়েছে।

 

সে সময় আরো জানানো হয়েছিল, পাটখড়ি কেউ ঘরে ব্যবহার করলে তা আইনের আওতায় আসবে না। তবে বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করলে, সেই ব্যবসা সরকার রেগুলেট করতে পারবে। এ বিষয়ে রিসার্চ ও তথ্য সংগ্রহও করতে পারবে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments